নিজস্ব প্রতিনিধি:
জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলার ৭নং সিধুলী ইউনিয়নের তরপাইর জোড়া ব্রীজের নিচ থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ব্যাক্তিটির অর্ধেক শরীর মাটির নিচে গর্তে থাকা অবস্থায় পাওয়া যায় । লাশ দেখে সনাক্ত করে তার বড়ভাই মতি ও ইউপি সদস্য মোঃ রকি। জানা যায় চরলোটাবর উত্তরপাড়া গ্রামের বাসিন্দা সুমির মন্ডলের ছোট ছেলে সুমন (তারি) মন্ডল। পারিবারিক সূত্রে জানা যায় গতকাল সে ইফতারের পর বাড়ী থেকে বের হয়ে রাত ১২টার পর বাড়ীতে ফিরে আসে। আবার সে বাড়ী থেকে বের হরে যায় কাউকে কিছু না বলে। তারপর থেকে তাকে আর খোঁজে পাওয়া যায় না। সকালে এক পাগলের সহযোগিতায় তার লাশের খোঁজ মিলে। পেশায় সে একজন ঝালমুড়ি বিক্রেতা ও আখ বিক্রেতা |
৭নং সিধুলী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মোঃ রকি এবং এলাকাবাসী এই নৃশংস হত্যা কান্ডের বিচার দাবী করেন। সোমবার ১৮ মার্চ সকাল ১০ টা ৭নং সিধুলী ইউনিয়নের তরপাইর জোড়া ব্রীজের নিচ থেকে এ লাশ উদ্ধার করে মাদারগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ। পুলিশ জানায়, তরপাইর এলাকা থেকে সকাল ৮ টায় ফোনে একজন থানায় ফোন করে বলেন তরপাইর জোড়া ব্রীজের নিচে একটি লাশ পড়ে আছে । খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক মাদারগঞ্জ মডেল থানা ও শ্যামগঞ্জ কালীবাড়ি পুলিশ সদস্যরা সেখানে যান। নিহতের পরনে ছিল গেঞ্জি ও লুঙ্গি এবং মুখে হালকা দাঁড়ি আছে । নাক-মুখ রক্তেরলালা দেখা যায়। মাদারগঞ্জ সার্কেল এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সজল কুমার সরকার বলেন, মৃত্যুর কারনএখনো নির্ণয় করা সম্ভব হয়নি। কারণ নির্ণয়ের জন্য আমরা লাশ ময়না তদন্তের লক্ষ্যে শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ