শুক্রবার, ২৯ জুলাই, ২০২২

দৈনিক দেশ রূপান্তর পত্রিকার সম্পাদক অমিত হাবিব মারা গেছেন,
ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।
বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) রাত ১১টায় রাজধানীর নিউরোসাইন্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।
গত ২১ জুলাই স্ট্রোক হলে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় অমিত হাবিবকে। অফিস চলাকালে তিনি স্ট্রোক করেছিলেন।
প্রসঙ্গত, ১৯৮৭ সালে খবর গ্রুপ অব পাবলিকেশন্সে একই সঙ্গে রিপোর্টার ও সাব-এডিটর হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন অমিত হাবিব। পরে সাপ্তাহিক পূর্বাভাস পত্রিকায় সাব-এডিটর পদে যোগ দেন তিনি।
১৯৯১ সালে দৈনিক আজকের কাগজ পত্রিকায় সিনিয়র সাব-এডিটর পদে যোগ দেন। এর পরের বছর একই পদে যোগ দেন দৈনিক ভোরের কাগজে। অল্প দিনের মধ্যে পদোন্নতি পেয়ে যুগ্ম বার্তা সম্পাদক ও পরে বার্তা সম্পাদক হন তিনি।
২০০৩ সালে দৈনিক যায়যায়দিন পত্রিকায় প্রধান বার্তা সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন খ্যাতিমান এ সাংবাদিক। তবে পত্রিকাটি বাজারে আসে ২০০৬ সালে। ২০০৭ সালে চীনের আন্তর্জাতিক বেতারে বিদেশি বিশেষজ্ঞ হিসেবে যোগ দিয়ে পেইচিংয়ে কর্মরত থাকা অমিত হাবিব দেশীয় সাংবাদিকতার সঙ্গে দূরত্বের কথা বিবেচনায় তা ছেড়ে দেশে ফিরে আসেন।
এর পরের বছর দৈনিক সমকালে প্রধান বার্তা সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন তিনি। দৈনিক সমকালের প্রধান বার্তা সম্পাদকের পদ ছেড়ে ২০০৯ সালে কালের কণ্ঠে নির্বাহী সম্পাদক হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। ২০১৩ সাল থেকে উপদেষ্টা সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন এবং ২০১৭ সালে দৈনিক দেশ রূপান্তরের সম্পাদক হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন খ্যাতিমান এ সাংবাদিক।
অমিত হাবিবের বাড়ি ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার কাজিরবেড় গ্রামে। তার পিতা খন্দকার তওহিদুল হক, মাতা শামসুন্নাহার বকুল, ৩ ভাই, তিনি সবার বড়। মৃতু্কালে তিনি স্ত্রীকে রেখে গেছেন। তিনি নিসন্তান ছিলেন।
খ্যাতিমান সাংবাদিক অমিত হাবিবের মৃত্যুতে আমরা একজন অভিভাবককে হারলাম, যা অপূরনীয়।
তার মৃত্যুতে গতকাল রাত্রে এক শোকবার্তায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মরহুমের বিদেহী আত্নার মাগফিরাত কামনা করেন,
এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ