নিজস্ব প্রতিবেদক

মেঘলা বান্দরবানে ২এপিবিএন বাংলাদেশ পুলিশের অধিনায়ক (অতিরিক্ত ডিআইজি) আলী আহমদ খান এর দিক নির্দেশনায় এসআই(নিঃ) মোঃ জামাল হোসেন সঙ্গীয় অফিসার ফোর্সসহ অদ্য ০৯/০৭/২০২৩ খ্র্রিঃ বান্দরবান সদর থানাধীন এলাকায় অভিযান ডিউটি করাকালীন সময়ে কানাপাড়ায় অবস্থানকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তালুকদার পাড়াস্থ পার্শ্ববর্তী ভান্ডারী পাড়া এলাকার মৃত আব্দুল হাকিমের বসত বাড়ির সামনে হইতে অভিযান করে সময় আনুমান ১৩:০০ ঘটিকায় আসামী-১। মোঃ ছলিমুল্লাহ (৪২), পিতা-মৃত নুর আহমদ, মাতা-আনোয়ারা বেগম, সাং-বম ফাদ খোলা, বমু ইউপিস্থ ০৮নং ওয়ার্ড, থানা-চকরিয়া, জেলা-কক্সবাজার, ২। মোঃ বাবুল হোসেন (২৬), পিতা-বাদশা মিয়া, মাতা-রোশন আক্তার, সাং-দরবেশ হাট, ০৬নং ওয়ার্ড, আমিরাবাদ, থানা-লোহাগাড়া, জেলা-চট্টগ্রাম, উভয় এ/পি তালুকদার পাড়াস্থ ভান্ডারী পাড়া, ৩নং বান্দরবান সদর ইউনিয়ন, ০৪নং ওয়ার্ড, থানা-বান্দরবান সদর, জেলা-বান্দরবান‘দ্বয়কে মেঘলা ২ আর্মড ব্যাটালিয়ন পুলিশের ইন্টেলিজেন্স শাখায় এনে জিজ্ঞাসাবাদে প্রাথমিক পর্যায়ে অনলাইন জুয়া পরিচালনার বিভিন্ন এ্যাপসের সত্যতা তাদের ব্যবহারিত মোবাইল ফোনে পাওয়া যায়। তবে ব্যবহারিত এ্যাপস গুলো হতে সাম্প্রতিক সময়ে তারা অনলাইন জুয়া খেলার কাজে জড়িত ছিল মর্মে সুনির্দিষ্ট কোন এভিডেন্স পাওয়া যায় নাই। এছাড়াও ২নং অভিযুক্ত তার অসুস্থ অন্তঃসত্তা স্ত্রী থাকায় মানবিক কারণে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি সাপেক্ষে তাদের নিজ নিজ অভিভাবক এবং ইউপি জনপ্রতিনিধি অজিত তংঞ্চঙ্গা ৪নং ওয়ার্ড ৩নং বান্দরবান সদর থানা ইউনিয়নের নিকট বিশেষ শর্ত সাপেক্ষে জিম্মায় প্রদান করা হয়। বিষয়টি বান্দরবান সদর থানায় তাং-০৯/০৭/২০২৩ মূলে ৪০০ নম্বরে সাধারণ ডায়েরিভুক্ত করা হয়।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ