কামরুজ্জামান রুবেল,বিশেষ প্রতিনিধিঃ
হাওলাপাড়া টংগীর খাল ব্রীজের উপর পথ রোধ করে এলোপাথারি কোপিয়ে শাওন নামের এক কিশোরকে গুরুতর আহত করে স্থানীয় সন্ত্রাস বাহিনী।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক ব্যাক্তি জানায়, ১০/১১ জন তাওসিন আহাম্মেদ শাওনের পথ রোধ করে মাথায় ও মুখে কোপিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে শাওনের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে এবং নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে শাওনের অবস্থা আশংঙ্কা জনক দেখে কর্তব্যরত ডাক্তার উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করে। এই ঘটনায় ইতি মধ্যে নান্দাইল মডেল রাজন, রোকন, সোহেল, রিয়াদ, আহাদ, সাগর সহ নামাংসিত ৬জন ও অজ্ঞাত ৩/৪ জনের বিরুদ্ধে শাওনের মামা মোঃ আরিফুল হাসান রাজন বাদী হয়ে অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে রাজন উল্লেখ করেন, আসামীগণ আমাদের নিকট প্রতিবেশী গ্রামের বাসিন্দা। তারা ভবঘুরে ও সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক এবং বিভিন্ন খারাপ নেশায় জড়িত থাকে। তারা প্রায় সময় আমাদের এলাকায় এসে মাদক সেবন সহ বাজে আড্ডা দেওয়া সহ উশৃঙ্খল আচার করতো। আমি ও আমার ভাগীনা শাওন তাদেরকে এহেন কার্যকলাপের প্রতিবাদ করায় তারা আমাদের প্রতি শত্রুতা সৃষ্টি হয়। ঘটনার দিন আমার ভাগীনা শাওন জামতলা বাজার থেকে আমার বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হইয়া বিকালে হাওলাপাড়া টংগীর খাল ব্রীজের উপর পৌঁছা মাত্রই সন্ত্রাসীরা পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে চাপাতি ও কিরিচ নিয়ে খুন করার উদ্দেশ্যে শাওনকে ঘেরাও করে আক্রমন করে। শাওন এর মামা রাজন আরও জানায়, বর্তমানে শাওন জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছে। শাওনের মা তাসলিমা আক্তার গণমাধ্যম কর্মীদের জানায়, শাওন চন্ডীপাশা সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগ থেকে উর্তীন হয়ে শহীদ স্মৃতি আদর্শ ডিগ্রি কলেজ এইচ.এস.সি. ভর্তী হওয়ার জন্য আবেদন করেছে। আমার এতিমনছেলেকে যারা কেড়ে নিতে চেয়েছিল আমি তাদের সর্বোচ্চ বিচার দাবি করছি।
নান্দাইল মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান আকন্দ বলেন, ইতিমধ্যে শাওনের মামা বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
উক্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় জনমনে ক্ষোভ বিরাজ করতে দেখাযাচ্ছে।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ