মিজানুর রহমান মিলন, বগুড়া জেলা প্রতিনিধি :
বগুড়ার শেরপুরের ভবানীপুর ইউনিয়নের চন্ডিপুর গ্রামে স্ত্রী হিসেবে স্বামীর বাড়িতে ওঠার দাবিতে অনশন করছে মোছাঃ সুমাইয়া আক্তার নামের এক নারী ।
গত বৃহস্পতিবার (২৯ ডিসেম্বর) বিকাল ৩ ঘটিকায় উপজেলার চন্ডিপুর গ্রামের মোঃ বদিউজ্জামানের পুত্র মোঃ আব্দুল মোমিনের বাড়িতে অনশন করছে একই গ্রামের মোঃ আল মাহমুদের কন্যা মোছাঃ সুমাইয়া আক্তার।
স্থানীয়দের নিকট থেকে যানা যায়, গত তিন বছর পূর্বে থেকে মোমিন ও সুমাইয়ার শরীয়ত অনুয়ায়ী ৫ লক্ষ ১০ হাজার টাকার দেমোহরে বিয়ে হয় কিন্তু তাদের বয়স কম হওয়ায় ননজুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে বর ও উভয় পক্ষের স্বাক্ষর সম্বলিত একটি দলিলে লেখা আছে বর ও কনের পূর্ণবয়স হওয়া পর্যন্ত নিজ নিজ অভিভাবক লেখাপড়া সহ অন্যান্য খরচ মেটাবেন এবং বর কনে স্বামী স্ত্রী হিসেবে বসবাস করবেন। তারা স্বামী স্ত্রী হিসেবে বসবাসের পরেও প্রায় ১ বছর যাবৎ স্ত্রীর আর খোঁজ নেয় না। তাই উপায় না পেয়ে স্বামীর বাড়িতে উঠতে চাইলে বাড়ির গেইট লাগিয়ে দেয়।
সুমাইয়ার সাথে কথা বললে তিনি জানান, আমাদের বিয়ের তিন বছর হয়ে গেছে। আমরা একসঙ্গে প্রায় দুই বছর ছিলাম। এক বছর যাবৎ খোঁজ না নেওয়ায় আমি বাড়িতে উঠতে চাইলে বাধার সম্মুখীন হলাম। আমাকে বাড়িতে উঠতে না দেওয়া পর্যন্ত অনশন চালিয়ে যাবো ।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ