শেখ দুলাল আহম্মেদ ভাইকে,জাতীয় শ্রমিকলীগ এর কালিয়াকৈর উপজেলা শাখা কমিটি এর সভাপতি হিসাবে কেন আমরা চাই।

মোঃ জাহিদ হাসান (ফেডারেশনের জাহিদ)

সময়টা ছিল 2001 সাল জামাত, বিএনপির জোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর চৌধুরী তানভীর আহমেদ সিদ্দিকী গুন্ডাবাহিনী 6 অক্টোবর শেখ দুলাল আহাম্মেদ কে হত্যার উদ্দেশ্যে তার বাড়িতে হামলা চালায় দুলাল আহমেদ কে না পেয়ে তার ভাগিনা মৌচাক ইউনিয়ন যুবলীগের প্রচার সম্পাদক মুসলিম উদ্দিন কে কুপিয়ে হত্যা করে। দুলাল আহাম্মেদ এর অপরাধ ছিল বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে তার নিজ ভোটকেন্দ্রে নৌকা মার্কা কে বিপুল ভোটে বিজয় করেন সেই থেকে শুরু করে জেল জুলুম নির্যাতনে শিকার হয়ে বিএনপি-জামাতের মিথ্যা বানোয়াট মামলায় জেলে নিয়ে তার ওপর শারীরিক নির্যাতন করা হয় দেওয়া হয় একের পর এক মিথ্যা মামলা একটি দুলাল আহমেদ একদিন দুই দিনে উঠে আসেনি দীর্ঘ 32 বছর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাথে কাঁধ মিলিয়ে দলের দুঃসময়ে কালিয়াকৈর উপজেলা ও আঞ্চলিক কমিটির সাংগঠনিক দায়িত্ব পালন করেন। এই নির্যাতিত শ্রমিক নেতা দুলাল আহম্মেদ কখনো নিজের দলের সাথে বেইমানি করেনি আশা করব দুঃসময়ের ত্যাগী নির্যাতিত শ্রমিক নেতা কে জাতীয় শ্রমিক লীগ কালিয়াকৈর উপজেলা শাখার সভাপতি হিসাবে নির্বাচিত করবেন। গাজীপুরের আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ দের ওপর আমাদের পূর্ণ আস্থা আছে। জয় বাংলা জয় হোক শ্রমিক লীগ এর জয় হোক মেহনতী মানুষের,,

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ