তানিয়া আক্তার, নাটোর প্রতিনিধি:
নাটোরের পচা বড়াল নদের বেড়িবাঁধের মাটি বিক্রি করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে এক প্রভাবশালী চক্র। বেড়িবাঁধের ওপর বড় বড় গাছ ও বাঁশবাগান থাকলেও তাও নির্বিচারে কেটে ফেলা হয়েছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি,ভূমি অফিসের অনেক কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বিষয়টি জানলেও কেউ বাধা দেয়নি। বেড়িবাঁধ কেটে ফেলার কারণে আগামী দিনে বড় বন্যা হলে এলাকার বাড়িঘরের পাশাপাশি ফসলের ক্ষতির আশঙ্কা করছে স্থানীয়রা। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নাটোর লালপুর উপজেলার কদিমচিলান ইউনিয়ন এর চাঁদপুর সাজি পাড়া মোক্তার মন্ডল এর জমির(পজিশনে) বড়াল নদীর অন্তত আধা কিলোমিটার এলাকাজুড়ে বেড়িবাঁধের মাটি কেটে নিয়েছে প্রভাবশালীরা।১০ থেকে ১২ ফুট উচ্চতার বাঁধের মাটি কেটে জমি সমান করা হয়েছে।তা ছাড়া বেড়িবাঁধের ওপর বড় বড় গাছ ও বাঁশঝাড় থাকলেও সেগুলো কেটে ফেলা হচ্ছে হরহামেশাই। সবার চোখের সামনে এসব ঘটলেও তাতে কেউ বাধা দেয়নি।জমির মালিক মোক্তার মন্ডল এর সাথে কথা বলে জানা যায় তিনি বলেন আমি ঐ জমিটা আব্দুল হাকিম নামের একজনের কাছে লিজ দিয়েছি।সে হয়তো মাটি বিক্রি করছে।আমার বিষয়টি জানা নাই।আব্দুল হাকিমের কাছে জানতে চাইলে তিনি আমি জমি সমান করে চাষাবাদের জন্যে প্রস্তুত করার জন্যে মাটি উপসারন করছি। এলাকাবাসি জানান ঠিকাদার ডাবলু কন্ট্রাক্টর এক্সেভেটর দিয়ে রাশিয়ান গাড়ি দিয়ে মহাসড়ক ব্যাবহার করে বিভিন্ন ইট ভাটায় ১২০০ টাকা দরে বিক্রি করছে। ১০ নং কদিমচিলান ইউনিয়েনের চেয়ারম্যান আনসারুল ইসলাম জানান এর আগেও এসিল্যান্ড এসে মোবাইল কোট বসিয়ে ব্যাটারি জব্দ ও ২০০০০ টাকা জরিমানা করে ডাবলু কে,আমি সিলেট থাকার সুযোগে রাতের আধারে নদীর মাটি কেটে বিক্রি করছে।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ