মানিক হোসেন, রাজশাহী প্রতিনিধি :

‘নারী ও কন্যা নির্যাতন বন্ধ করি, নতুন সমাজ নির্মাণ করি’- এই শ্লোগানকে সামনে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজশাহী জেলা শাখার উদ্যোগে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবস -২০২২ পালন উপলক্ষ্যে সোমবার (২৮ নভেম্বর) বিকাল ৩ টায় বড়গাছী ইউনিয়ন কমিটিতে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এই সভায় সভাপতিত্ব করেন রাজশাহী জেলা শাখার সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি কল্পনা রায়। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বড়গাছী ইউনিয়ন কমিটির সাধারণ সম্পাদক রহিমা বেগম।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন প্রচার সম্পাদক আফরোজা খান হেলেন, সদস্য নুরুন্নাহার পারভীন, প্রমূখ। এই সভায় বক্তারা বলেন, নারী ও কন্যা শিশু নির্যাতনের ঘটনা উদ্বেগজনকহারে বেড়েছে। যা মিডিয়ার সহায়তায় এখন সকলেই বিষয়গুলি জানতে পারছে। ঘটনা গুলো বিশ্লেষন করলে দেখা যায়, পরিবারের পরিমন্ডলেই নারী ও কন্যাশিশুরা বেশি নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। সাধারণ জনগন এবং আপনাদের সহায়তায় এখনই প্রতিরোধের কাজ শুরু করতে হবে পরিবার থেকে।

ঐতিহাসিকভাবে ২৫ নভেম্বর দিনটির বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে।

এই সভায় সভাপতি তার বক্তব্যে নারী নির্যাতন প্রতিরোধে কয়েকটি দাবি তুলে ধরেন, ১. নারী ও শিশু নির্যাতনের মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি করতে হবে। ২.বিচার চলাকালে নির্যাতনের শিকার নারী, শিশু ও পরিবারের নিরাপত্তা, চিকিৎসা ও ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। ৩. নারী ও শিশু নির্যাতনের মামলায় সাক্ষী প্রদান প্রক্রিয়া যুগোপযোগী করতে হবে। ৪. হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী যৌনহয়রানি প্রতিরোধে নীতিমালা প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করতে হবে। ৫. পারিবারিক নির্যাতন (প্রতিরোধ ও সুরক্ষা) আইন ২০১০ সফল করতে হবে। ৬. ধর্ষণ, যৌন সহিংসতা, নারী ও শিশু নির্যাতনের বিরুদ্ধে সরকারকে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করতে হবে। ৭.নারী নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে বিশেষ অভিযান ঘোষণা ও বাস্তবায়ন করাসহ সব প্রকার বৈষম্যমূলক আইন ও নারী নির্যাতনবিরোধী আইন সংশোধন করতে হবে।

সবশেষে সভায় সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভা শেষ করেন।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ