মানিক হোসেন, রাজশাহী প্রতিনিধি :
ইনস্টিটিশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ-আইডিইবির কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাচন ঘিরে রাজশাহীতে ফজলুল হক মল্লিক-খন্দকার মাঈনুর রহমান প্যানেলের পরিচিতি সভায় হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় অন্তত ২৫ জন প্রকৌশলী আহত হয়েছেন। এসময় দুর্বৃত্তরা নগরীর আইডিইবি অফিস ভাংচুরও করে।

সোমবার (১২ ডিসেম্বর) দুপুরে রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের রেস্ট হাউজে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেছেন মল্লিক-খন্দকার প্যানেলের প্রার্থীরা।

এসময় তারা বলেন, রবিবার সন্ধ্যার পর প্যানেলের পরিচিতি সভা চলাকালে তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী হামিদ-শামসুর প্যানেলের নেতাদের মদদে বহিরাগতরা এসে হট্টগোল সৃষ্টি ও প্রকৌশলীদের ওপর হামলা চালায়। পরে ৯৯৯ ফোন করা হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে তাদের হামলায় অন্তত ২৫জন আহত হন।

জানা যায়, আগামী ১৯ ডিসেম্বর সারাদেশে অনুষ্ঠেয় ভোট বানচালে সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয় বলেও তাদের অভিযোগ।

সংবাদ সম্মেলন থেবে অবিলম্বে অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবিও জানিয়েছেন তারা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান সহ-সভাপতি প্রার্থী মোফাজ্জল হক। তিনি বলেন, রবিবার সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে রাজশাহী নগরীর কাশিয়াডাঙ্গা থানাধীন টুলটুলিপাড়াস্থ আইডিইবি কার্যালয়ে প্যালেন পরিচিতি সভা চলাকালে এ ঘটনা ঘটে।

এতে আহত আব্দুর রাজ্জাক নামের (৩৫) একজনকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অপর আহতরা হলেন- আবু বক্কর ও আহসান হাবিব।

আইডিইবির সদস্য মাসুদ বলেন, আগামী ১৯ ডিসেম্বর আইডিইবির কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাচন। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজশাহী আইডিইবিতে মতবিনিময় সভা চলছিল। এ সময় ৮-১০ জন বহিরাগত সন্ত্রাসী এসে হামলা ও ভাঙচুর চালায়। তারা হামিদ শামসুর রহমানের পক্ষে স্লোগান দেয়।

নগরীর কাশিয়াডাঙ্গা থানা পুলিশের ওসি মাসুদ পারভেজ বলেন, আগামী ১৯ ডিসেম্বর আইডিইবিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। তবে এই ঘটনায় কেউ এখন পর্যন্ত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সহ-সভাপতি প্রার্থী মোফাজ্জল হক সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন হামিদ-শামসুর প্যানেলের নেতাদের মদদেই এ হামলার ঘটনা ঘটনা ঘটানো হয়। তিনি ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার দাবি করেন।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ