নারায়ণগঞ্জে যেভাবে মিছিলে গুলি চালানো হয়েছে, তা শুধু হত্যার উদ্দেশ্যেই করা হয়েছে। একেবারে পয়েন্ট রেঞ্জ থেকে গুলি করে মারা হয়েছে।

এভাবে হত্যা করে মানুষের আন্দোলন বন্ধ করা যাবে না।
আজ শনিবার (৩ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবে নাগরিক ঐক্যে যোগদান অনুষ্ঠানে এসব মন্তব্য করেন নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না।
লাঠি, গুলি, টিয়ার গ্যাস; জবাব দেবে বাংলাদেশ মন্তব্য করে মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, আমরা দল হিসেবে ছোট, কিন্তু আমাদের হৃদয় বড়, আমাদের দৃষ্টি অনেক বেশি প্রসারিত। সেই জায়গা থেকে বলেছি, এই সরকারের পতন অবশ্যম্ভাবী। এসময় তিনি নেতা-কর্মীদের বিশ্বাস না হারানোর আহ্বান জানান।
ডাকসুর সাবেক এই ভিপি বলেন, আপনি যাকেই জিজ্ঞেস করবেন, সে বলবে আওয়ামী লীগ তো পুলিশ লীগ। যার সর্বশেষ উদাহরণ বিনা উস্কানিতে নারায়ণগঞ্জে পুলিশের গুলি। মানে কি?
নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, একটি অন্তর্বর্তীকালীন সরকার ছাড়া আগামী নির্বাচন হতে পারে না। এ সরকারের অধীনে সকল রাজনৈতিক দলকে নির্বাচন বর্জন করতে হবে। আমরা এই স্বৈরাচারীর ফ্যাসিবাদী সরকারের বিরুদ্ধে লড়ছি এবং লড়বো। আমরা চাই এ লড়াইয়ে দলমত নির্বিশেষে সবাই শামিল হোক।
তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ সোনার বাংলার কথা বলেছিল, আওয়ামী লীগকে কেউ ভালবাসে না। তারা সরকার গঠনের সঙ্গে সঙ্গে সোনার বাংলা তামা হয়ে গেছে। একটা দল, যেটা ১ নম্বর দল, মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্ব দানকারী দল, কীভাবে নিঃশেষ হয়ে গেল!
সভায় উপস্থিত ছিলেন, নাগরিক ঐক্যের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল্লাহ কায়সার, প্রেসিডিয়াম সদস্য মুক্তিযোদ্ধা মমিনুল ইসলাম ও জিন্নুর চৌধুরী দীপুসহ অনেকে।
পরে ১১ আইনজীবীকে নাগরিক ঐক্যে যোগদানে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ