মিয়ানমারের একটি নাগরিককেও বাংলাদেশে ঢুকতে দেওয়া হবে না। কারণ মিয়ানমারের অভ্যন্তরে সংঘাত চলছে।

আমরা অসমর্থিত সূত্রে জানতে পেরেছি, ওই এলাকায় মিয়ানমারের সৈন্য রয়েছে।
শনিবার (৩ সেপ্টম্বর) বিকেলে সিলেটের লাক্কাতুরা গলফ ক্লাব মাঠে চা শ্রমিকদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর ভার্চুয়াল মতবিনিময় সভা শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. এ কে আব্দুল মোমেন।
ডা. এ কে আব্দুল মোমেন, মিয়ানমারের সৈন্যরা প্রচারণা চালিয়েছে, যাতে ওই এলাকায় যেসব লোকজন আছে, তারা যেন সরে যায়। যার ফলে আমাদের ভয় হয় এখন তারা অত্যাচারিত হবে। সংঘাত বেশি হবে। তখন হয়তো তারা আমাদের দিকে আসার চেষ্টা করবে। তবে শুনে আশ্বস্ত হয়েছি, তারা আমাদের দিকে আসছে না, অন্যদিকে যাচ্ছে। তবু আমরা এটা শোনার পর আমাদের বর্ডার ফোর্সসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অতিরিক্ত প্রস্তুতি নিতে বলেছি।
তিনি আরও বলেন, মিয়ানমারের বোমা আমাদের এখানে এসেছে। তবে যে বিমান এসেছিল সেটা আমাদের এখানে ঢোকেনি। তারপরও তাদের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে বলেছি, তারা বলেছে এটা স্ট্রে বোম্ব। এটা আমাদের ওখানে নয়, বর্ডার ক্রস করেনি।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ