মোঃ আকরাম হোসেন,
স্টাফ রিপোর্টারঃ
ঢাকা জেলার সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই ) আল মামুন কবির এর বিরুদ্ধে মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন অপপ্রচার চালানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন ভুক্তভোগী সজল।
ভুক্তভোগী সজল প্রতিবেদক কে বলেন,গত ১৪/১২/২০২৩ আনুমানিক রাত ১১ টা ৩০ মিঃ সময় উপ-পরিদশক (এস আই) আল মামুন কবির একটি ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামীকে ধরতে এসে সন্দেহ মুলক আমাকে ধৃত করেন,তবে আাসামীর পরিচয়পত্র যাচাই করতে আমার এন,আইডি কার্ড ছবি পর্যালোচনা করে উক্ত আসামীর সাথে আমার পরিচয় মিল না থাকায় আমাকে স্ব-সম্মানে ছেড়ে দিয়ে চলে যান।উক্ত বিষয়টি নিয়ে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে এলাকার মাদকাসক্ত ও নানা অপকর্মের হোতারা মাস্টারপ্ল্যানে নাম সর্বস্ব মিডিয়া ও বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় ধারাবাহিক ভাবে অপ-প্রচার চালিয়েছেন।জানা যায়, উপ-পরিদশক (এস আই) আল মামুন কবির সাভার মডেল থানায় যোগদান করার পর থেকেই মাদক,সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, ছিনতাইকারী,ও দালালদের শক্ত হাতে দমন করে চলেছেন।বিভিন্ন অপকর্মের হোতারা এলাকায় সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করতে উপ-পরিদশক (এস আই) আল মামুন কবিরের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়েছেন।অপ-প্রচার চালানোর বিষয়টি বাংলাদেশের স্বনামধন্য পত্রিকা দৈনিক যুগান্তরের অনলাইনে, মঙ্গলবার (২৬ শে ফেব্রুয়ারী২০২৪) প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ হিসাবে সম্প্রচার করেছেন।পাশাপাশি উপ-পরিদশক (এস আই ) আল মামুন কবির ও সাইফুল ইসলাম এর বিরুদ্ধে অপপ্রচারের কথা জানতে পেরে আর ও একজন ভুক্তভোগী সাভার মডেল থানায় হাজির হয়ে,অপ-প্রচারকারী ও দুষ্কৃতকারী অজ্ঞাত নামা ব্যাক্তিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে ভবিষ্যৎ এর জন্য একটি সাধারন ডায়েরি (জিডি) করেছেন।যাহার জিডি নং (২৩৬৯) সাভার মডেল থানা তারিখ ২৬/০২/২০২৪ ইং।এ বিষয়ে, উপ-পরিদশক (এস আই) আল মামুন কবির বলেন,বিষয় সমূহ যাচাই না করে মিথ্যাচার করে আমার ও আমার পরিবারবর্গ এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী প্রশাসনকে হেয়প্রতিপন্ন করা হয়েছে। আমি সকল সংবাদকর্মীদের উদ্দেশ্য করে বলবো,বেশি বেশি করে তথ্য যাচাই পূর্বক সত্যটা তুলে ধরুন,ভুলে যাবেন না সাংবাদিক জাতির বিবেক সমাজের দর্পন,আসুন সকল প্রকার অনিয়ম দুর্নীতি গুড়িয়ে দিয়ে মানুষের কল্যানে কাজ করি।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ