মাদারীপুর সদর উপজেলায় স্ত্রীর পরকীয়া প্রেম স্বামী দেখে ফেলায় লজ্জায় স্ত্রীর আত্মহত্যা করেছে। শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সদর উপজেলার কলেজ রোড এলাকার ভাড়াটিয়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে। মৃত সাবিহা বেগম কালকিনি উপজেলার মিয়ারহাট ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রামের বোরহান সরদারের মেয়ে। সাবিহা বেগমের ইশিতা নামে ১৫ মাসের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।
এলাকাবাসী ও নিহত সাবিহার স্বামীর অভিযোগে জানা যায়, কালকিনি উপজেলার মিয়ারহাট ইউনিয়নের ভবানীপুর এলাকার রুবিন ফারহান ও নিহত সাবিহা সৈয়দ আবুল হোসেন কলেজে দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। এই সম্পর্ক থাকার কারণে রুবিন ফারহান সাবিহার মাদারীপুর সদর উপজেলা কলেজ রোড এলাকার ভাড়াটিয়া বাসায় মাঝে মাঝে আসত। সাবিহার স্বামী শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে যখন বাসায় আসে তখন প্রেমিক রুবিন ফারহান তার বাসা থেকে বের হন। আসা-যাওয়ার বিষয়টি দেখে আশপাশের প্রতিবেশীরা তার স্বামীকে বলে দেন।
এই লজ্জায় সাবিহা ঘরের ফ্যানের সাথে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন। পরে প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় হাসপাতালে নিয়ে আসার পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
মাদারীপুর সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক রোবায়েত ইবনে হাবিব বলেন, সাবিহা নামে এক কলেজ পড়ুয়া ছাত্রী ফ্যানের সাথে ওড়না পেঁচিয়ে কখন আত্মাহত্যা করেছে সেটা আমরা জানি না। কিন্তু হাসপাতালে আসার পরই তাকে আমরা মৃত অবস্থায় পেয়েছি। বিষয়টি জানাজানি হলে কথিত প্রেমিক রুবিন ফারহান পলাতক আছে।
মাদারীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনোয়ার হোসেন চৌধুরী জানান, এ ব্যাপারে প্রাথমিকভাবে আত্মহত্যার ধারণা করা হয়েছে। তদন্তের জন্য লাশটি মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলেই ঘটনার প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ