মাদারীপুর জেলা প্রধান

রাতের আঁধারে দোকানের সামনে ইট-বালু রেখে মাদারীপুরের কালকিনিতে মোঃ খোকন হাওলাদার-(৪৫) নামে এক ওষুধ ব্যবসায়ীর ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও ফার্মেসির দোকানসহ দুইটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহল। এতে করে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ব্যবসায়ী সমিতি ও স্থানীয় সচেতন মহল। এদিকে ঐ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়ায় সেবা নিতে আসা রোগিরা চরম ভোগান্তিতে পড়ছে। ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ভূক্তভোগী পরিবার। বুধবার ভোর রাতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে এ ঘটনা ঘটে।
ভূক্তভোগী পরিবার, থানা পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, পৌর এলাকার দক্ষিন রাজদী গ্রামের সাদেক আলী হাওলাদারসহ তিনজন মিলে প্রায় ২৭ বছর পূর্বে একই এলাকার অধীর চন্দ্র বিশ্বাসের কাছ থেকে এস.এ ৫৪ ও ৯ নং দাগে মোট ৬ শতাংশ জমি ক্রয় করেন। ক্রয়কৃত ঐ জমি ৯ নং দাগ দিয়ে সরেজমিনে দখলে বুঝিয়ে দেন। পরে ঐ দখলকৃত জমিতে সাদেক আলী হাওলাদারের ছেলে ব্যবসায়ী খোকন হাওলাদারসহ ওয়ারিশরা একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও ফার্মেসির দোকান দিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন। কিন্তু হঠাৎ একই এলাকার ইসমাইল শিকদারের লোকজন রাতে ঐ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে ইট ও বালু রেখে দিয়েছেন। এতে করে দুইটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যায়। ফলে সেবা নিতে আসা রোগিরা চরম ভোগান্তিতে পড়ছে। এ ঘটনা জানাজানি হলে ওষুধ ব্যবসায়ীদের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। এ ঘটনায় কালকিনি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ভূক্তভোগী পরিবার।
ভূক্তভোগী মোঃ খোকন হাওলাদার অভিযোগ করে বলেন, আমার বাবাসহ তিনজন মিলে প্রায় ২৭ বছর আগে ঐ জমি ক্রয় করেছন। পরে সেই ক্রয়কৃত জমিতে আমি ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও ফার্মেসির ব্যবসা করে আসছি। কিন্তু রাতে দোকানের সামনে ইট ও বালু রেখে দোকান বন্ধ করে দিয়েছে ইসমাইল শিকদারের লোকজন। এবং তারা ঐ দোকানসহ জমি দখলে নেয়ার জন্য পায়তারা চালাচ্ছে। তাই আমি তাদের নামে মামলা করবো। ব্যবসায়ী সমিতির সদস্য ও বেশ কয়েকজন স্থানীয় সচেতন মহল বলেন, সেবা মূলক প্রতিষ্ঠান কি করে প্রভাবশালীরা বন্ধ করে। আমরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই। অভিযুক্ত সুমন বলেন, আমরা আমাদের জমিতে ইট ও বালু রেখেছি। এ ব্যাপারে কালকিনি থানার অফিসার ইনচার্জ
মোঃ শামীম হোসেন বরেন, ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও ফার্মেসির দোকান বন্ধের ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তবে এটা জমি-জমা নিয়ে বিরোধের জের।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ