মাদারীপুর জেলা প্রধান

মাদারীপুরের রাজৈরের কথিত চুরির অভিযোগ এনে দোকান থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে দুইদিন আটকে রেখে ফল ব্যবসায়ী রবিউল শেখকে মধ্যযুগীয় পাশবিক কায়দায় নির্যাতন চালানোর অভিযোগ উঠেছে। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে গুরতর অবস্থায় শুক্রবার রাতে উদ্ধারের পর ওই ব্যবসায়ীকে ভর্তি করে হাসপাতালে। নির্মম এই ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী। পাশাপাশি সুষ্ঠু বিচার দাবী করেছেন স্বজনরা। এরইমধ্যে প্রধান অভিযুক্ত সুমন শেখকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
পুলিশ জানায়, কথিত চুরির অভিযোগ এনে বুধবার রাতে মাদারীপুরের রাজৈরের টেকেরহাট বন্দর থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় রবিউল শেখকে। পরে পাশের গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর এলাকার একটি ঘরে আটকে রেখে মধ্যযুগীয় কায়দার উলঙ্গ করে পাশবিক নির্যাতন চালায় সুমন শেখসহ অজ্ঞাত ৪-৫ জন। হাত-পা বেঁধে বাঁশের সাথে ঝুলিয়ে সিগারেটের ছ্যাঁকা দেয়া হয় চোখে। লোহার রড গরম করে শরীরের বিভিন্ন স্থানে ঝলসে দেয়া হয় বলে অভিযোগ রবিউলের। স্থানীয়রা বিষয়টি বুঝতে পেরে পুলিশকে খবর দেয়। শুক্রবার রাতে রবিউলকে উদ্ধার করে রাজৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে পুলিশ। এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের দাবীতে মানববন্ধন করেছেন স্বজন ও এলাকাবাসী। এরইমধ্যে প্রধান অভিযুক্ত সুমন শেখকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ