নিজস্ব প্রতিবেদক:কোন মানুষের পক্ষে পৃথিবীতে একা বাস করা সম্ভব নয়,বিভিন্ন প্রয়োজনে একে- অপরকে সাহায্য করতে হয় এবং সাহায্য লাগে।কথায় আছে “ভোগে সুখ নাই ত্যাগেয় সুখ” তাই মানুষের জন্য কিছু করার মধ্যে যে আনন্দ ও তৃপ্তি লুকিয়ে আছে যা অন্য সবকিছুর চেয়ে আলাদা এবং বিপরীত মুখী।
মানুষ তো সারা জীবন তাকে/তাদের মনে রাখে যে বা যারা সমাজের অবহেলিত মানুষদের জন্য ভালো কিছু করে।একটি সুন্দর স্বপ্ন হতে পারে, মানুষের সঙ্গে সু-সম্পর্ক তৈরি করা ও সহযোগিতার সৌন্দর্য উপলব্ধি।

ওপার বাংলার সংগীত শিল্পী, সুরকার ও গীতিকার ভূপেন হাজারিকার বিখ্যাত গানের মতোই-মানুষ মানুষের জন্য,জীবন জীবনের জন্য একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারে না….ও বন্ধু?

মানুষের পাশে দলমত, ধর্ম-বর্ণ-নির্বিশেষে সবার এগিয়ে আসা জরুরি এবং উচিৎ।জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম ছিলেন অত্যাচার, অনাচার ও শোষণের বিরুদ্ধে সোচ্চার কণ্ঠস্বর। তিনি ‘সর্বহারা’ কাব্যগ্রন্থের ‘কান্ডারী হুশিয়ার’ কবিতায় লিখেছেন, ‘হিন্দু না ওরা মুসলিম? ওই জিজ্ঞাসে কোন জন? কাণ্ডারি! বল, ডুবিছে মানুষ, সন্তান মোর মার।’ সাধ্যমতো মানবসেবায় নিজেকে উৎসর্গ করা ধর্ম ও মানবিকতার দৃষ্টিতে অত্যন্ত মর্যাদাপূর্ণ কাজ।

সাহায্য করা অনেক ভাবেই হতে পারে। কথা দিয়ে, পরামর্শ দিয়ে, শ্রম দিয়ে, সঙ্গে থেকেও সাহায্য করা যায়। সংকটে ও বিপদে মানুষ মানুষকে সাহায্য করতে হবে। না হলে মানব জন্ম অনেকটাই অসম্পূর্ণ থেকে যাবে। মানব জীবনের সম্পূর্ণতা আর তৃপ্তির প্রয়োজনে মানুষের জন্য কিছু করা দরকার। আজ দুঃখ ভারাক্রান্ত মনে আক্ষেপ করতে হয়, ‘হে মানুষ তুমি আবার মানুষ হও’।  আসুন, মানুষের উপকারে নিজেকে আত্মনিবেদন করি। একটু সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিলে যদি একটি প্রাণ বাঁচে; একজন মানুষ বাঁচার স্বপ্ন দেখে, তাতে হয়তো আমাদের জীবনের স্বার্থকতা খুঁজে পাওয়া হবে মহাআনন্দের এবং সুখের। জয় হোক মানুষের, জয় হোক মানবতার।

এমন জগৎ বিখ্যাত বাণী ও শ্লোগান গুলোকে প্রাধান্য দিয়ে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও শুক্রবার (১৬ ডিসেম্বর) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ৫১তম বিজয় দিবস উপলক্ষে গাজীপুর জেলার এসএসসি ২০০৭ ও এইচএসসি ২০০৯ (০৭০৯) ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে হাতে হাত রেখে দিন ব্যাপী কালিয়াকৈর উপজেলার মৌচাক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে ফ্রী মেডিক্যাল ক্যাম্প ও সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।এখানে ছিলো- গাইনী, মেডেসিন, ডেন্টাল,নারী ও শিশু রোগ বিশেজ্ঞসহ বিভিন্ন জটিল কঠিন রোগের বিশেজ্ঞগণ।জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সেবা নিতে ছুটে আসেন প্রায় ১০০০ হাজারের ও বেশি মানুষ।ফ্রীতে এমন মানবিক সেবা পেয়ে দূরদূরান্ত থেকে ছুটে আসা মানুষদের চোঁখে মুখে ছিলো তৃপ্তির হাসি।

পরবর্তীতে বিজয় দিবস উপলক্ষে দূরদূরান্ত থেকে ছুটে আসা অতিথিদেরসহ এলাকাবাসীদের বিজয়ের আনন্দে মাতিয়ে তুলতে সন্ধ্যা ৬ ঘটিকা হইতে রাত্রি ১১ ঘটিকা পর্যন্ত সংস্কৃতিক অনুষ্ঠান চলে।

উক্ত মানবিক অনুষ্ঠানটি গতিশীল করতে উপস্থিত ছিলেন কালিয়াকৈর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহবায়ক সেলিম আজাদসহ আ.লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের একাধিক নেতাকর্মীরা।
GAZIPUR 0709 GROUP এডমিন প্যানেলের একাধিক সদস্যরা বলেন,আমরা প্রতিটি মানবিক কাজের জন্য সর্বদা সব সময় নিজেদের নিয়োজিত রাখতে চাই।সেই সাথে আমরা প্রতি বছর ধারাবাহিক ভাবে ১৬ ডিসেম্বরে ফ্রী মেডিক্যাল ক্যাম্পের আয়োজন করবো ইনশাল্লাহ্।আমরা আমাদের মানবিক কাজ গুলোর জন্য সমাজের বিত্তবান ব্যাক্তিসহ সকল শ্রেণী পেশার মানুষদের সহযোগীতা চাই।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ