মোঃ শহিদুল ইসলাম নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
নওগাঁর মহাদেবপুরে থানা পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে আন্তঃ
জেলার গরু চোর চক্রের ৪জন সক্রীয় সদস্যকে আটক করেছে। এছাড়া চুরি করা গরু পরিবহণের কাজে ব্যবহৃত একটি পিকআপ ও দেয়ালে সিদ কাটার কাজে ব্যবহৃত দুই পাশ সুচালো লোহার সিদকাঠি ও জব্দ করেছে পুলিশ। আটককৃতরা গরু চোর চক্রের সদস্যরা হলেন, নওগাঁ জেলার ধামইরহাট উপজেলার দেবীপুর গ্রামের আজাহার আলীর ছেলে গোলাপ (২৬), সাপাহার উপজেলার নিশ্চিন্তপুর দীঘিপাড়া গ্রামের বর্তমানে আমডাঙ্গার বাসিন্দা মৃত আলাউদ্দিন ওরফে ইটকেল আলীর ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন (৩০), আমডাঙ্গা গ্রামের মৃত অনিল চন্দ্রের ছেলে ও পিক-আপ চালক শ্রী নিরেন চন্দ্র ওরফে বাবু (৫০) ও ঐ উপজেলার তাজপুর গ্রামের লাল মোহাম্মদ ওরফে লাল মনের ছেলে বর্তমানে পোরশা উপজেলার ইটখোলা দীঘিপাড়া গ্রামে বসবাসকারী মৃত লোকমান হোসেনের জামাই তারিফ হোসেন (৩৫)।শুক্রবার ২৩ ডিসেম্বর দুপুরে নওগাঁর মহাদেবপুর থানা ভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে মহাদেবপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জয়ব্রত পাল জানান, গত বুধবার ২১ ডিসেম্বর দিবাগত রাত ১০টা থেকে রাত ৩টার মধ্যে ৮/৯ জনের একদল গরু চোর মহাদেবপুর উপজেলার খাজুর গ্রামের মোশাররফ হোসেন এর ছেলে ইসরাইল হোসেন এর গোয়াল ঘরের পাকা ইটের প্রাচীরে সিদ কেটে আনুমানিক ১ লাখ ৫৫ হাজার টাকা মূল্যের দুটি গাভী ও একটি বাছুর চুরি করে। সে সময় ঘটনাটি জানতে পেরে খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে দেবীপুর গ্রামের পাকা রাস্তার নীচের মাঠ থেকে গরুগুলো পিকআপে তোলার সময় জনতা গোলাপ একজন কে আটক করে ও চুরি যাওয়া গরুগুলো উদ্ধার করেন। খবর পেয়ে দ্রুত মহাদেবপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে গোলাপকে গ্রেফতার, পিকআপ ও সিদকাঠি জব্দ করেন।
এঘটনায় ইসরাইল হোসেন থানায় একটি মামলা দায়ের করলে নওগাঁর সুযোগ্য জেলা পুলিশ সুপার রাশিদুল হক মহোদয় এর নির্দেশনায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম এন্ড অপ্স) গাজিউর রহমান পিপিএম এর সার্বিক সহযোগিতায়, মহাদেবপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জয়ব্রত পাল, মহাদেবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোজাফ্ফর হোসেন, ওসি (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ, মহাদেবপুর থানার অফিসার ও ফোর্সের সমন্বয়ে একটি শক্তিশালী চৌকশ পুলিশ টিম গঠন করা হয়। বৃহস্পতিবার ২২ ডিসেম্বর দিবাগত রাতে বিভিন্ন থানায় এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে আসামীদের গ্রেফতার করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে মহাদেবপুর থানার ওসি জানান, আটককৃতদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। তাদেরকে গ্রেফতারের ফলে এলাকায় গরু চুরি কমে যাবে বলে আশা করা যায়। এসময় মহাদেবপুর থানার ওসি (তদন্ত), এস আই সামিনুর রহমান সহ অন্যান্য অফিসাররা উপস্থিত ছিলেন।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ