রবিবার,৭ আগস্ট,

রাজধানীর তুরাগের কামারপাড়া এলাকায় ভাঙারির দোকানে কেমিক্যাল বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩ জনে দাঁড়িয়েছে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া জানান, শনিবার (৬ আগস্ট) দুপুরের ওই ঘটনায় দগ্ধদের মধ্যে গাজী মাজহারুল ইসলাম (৪৭) রোববার (৭ আগস্ট) ভোরে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এর আগে শনিবার রাত ১১টার দিকে আলমগীর হোসেন আলম (২৩) এবং রাত ২টার দিকে নূর হোসেন (৬০) নামে দু’জনের মৃত্যু হয়।
পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া বলেন, ৩ টি মরদেহ মর্গে পাঠানো হয়েছে। ওই ঘটনায় আরো ৫ জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। নিহতদের মধ্যে মাজহারুল ইসলাম ছিলেন ভাঙারির দোকানের লাগোয়া রিকশা গ্যারেজের মালিক, বাকিরা রিকশাচালক। নিহতদের মধ্যে নুর হোসেনের শরীর ৯৫ শতাংশ, আলমের শরীর ৭০ শতাংশ আর মাজহারুলের শরীর ৩৭ শতাংশ দগ্ধ হয়েছিল।
শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অন্যরা হলেন- মো. মিজান (৩৫), মো. মাসুম মিয়া (৩৫), মো. আল-আমিন (৩০), মো. শরিফুল ইসলাম (৩২) ও মো. শাহিন (২৬)। এ হাসপাতালের আবাসিক সার্জন ডা. আইউব হোসেন বলেন, আহতদের সবার শরীরের ৪৫ থেকে ৯০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। সবার অবস্থাই আশঙ্কাজনক।
তুরাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মেহেদী হাসান জানান, উত্তরা কামারপাড়া এলাকায় ওই ভাঙারির দোকানের পাশে রিকশা গ্যারেজ রয়েছে। ভাঙারির দোকানে পুরনো ফেলে দেওয়া মালপত্রের গুদাম ছিল। সেখানে হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ নানা দাহ্য পদার্থও ছিল। গতকাল শনিবার দুপুরে ভাঙারির দোকানে পারফিউমের বোতল খোলার সময় হঠাৎ বিস্ফোরণ হয়। তাতে রিকশার গ্যারেজে থাকা ৮ জন গুরুতর আহত হন। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ