বৈশ্বিক শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য সাবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে বলে জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।
বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর ) ঢাকা সেনানিবাসের সেনা মালঞ্চে আন্তর্জাতিক শান্তি দিবস-২০২২ উদযাপন উপলক্ষে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী এবং নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত ‘বিশ্ব শান্তিতে বাংলাদেশের ভূমিকা’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, মানবজাতির প্রতি বঙ্গবন্ধুর দর্শনই আমাদের সংবিধানের মূল ভিত্তি। এই ভিত্তিকে উজ্জীবিত রাখতে আমরা সবাই বদ্ধপরিকর থাকব। আশা করছি, বঙ্গবন্ধুর এই দর্শন এবং বাংলাদেশের সংবিধানকে সমুন্নত রেখে বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশি শান্তিরক্ষী ও সব পর্যায়ের অংশীদাররা সমন্বিত প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে।
সেমিনারে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের অসামান্য অবদান উল্লেখপূর্বক সামগ্রিকভাবে শান্তিরক্ষীদের সার্বিক অর্জনকে তুলে ধরেন। পাশাপাশি এই অর্জনকে সমুন্নত রেখে বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের আরও সক্রিয় ভূমিকা পালনে করণীয় সম্পর্কে আলোকপাত করেন।
নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম বাংলাদেশ অভ্যন্তরে ও দেশের বাহিরে শান্তি রক্ষায় চেয়ে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে সে বিষয়ে আলোকপাত করেন।
এ বছর আন্তর্জাতিক শান্তি দিবসের মূল প্রতিপাদ্য হল ‘বর্ণবাদের অবসান, শান্তি বিনির্মাণ’। এই ধারণাকে সামনে রেখে নতুন প্রজন্মের কাছে বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশের সক্রিয় এবং গৌরবময় ভূমিকা তুলে ধরার পাশাপাশি বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় ভবিষ্যত চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বাংলাদেশের সব স্তরের অংশীদারদের জন্য একটি সার্বজনীন সহায়ক ক্ষেত্র প্রস্তুত করাই হবে এই সেমিনারের মূল উদ্দেশ্য।
সেমিনারে সংসদ সদস্য, বাংলাদেশে নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের সামরিক উপদেষ্টা ও ডিফেন্স অ্যাটাশেগণ, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর, সশস্ত্র বাহিনী, বাংলাদেশ পুলিশ ও বিভিন্ন মন্ত্রণালয় হতে আমন্ত্রিত ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা ও দেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ