বান্দরবান সদরের বালাঘাটায় শিশু ধর্ষণের মামলায় একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল এবং জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. সাইফুল রহমান সিদ্দিক এ রায় দেন।

৪৪ বছর বয়সী দণ্ডিত মো. শফিউলের বাড়ি কক্সবাজার সদর উপজেলার ভারুয়াখালি ইউনিয়নের ছোট চৌধুরীপাড়ায়। সে বান্দরবান পৌর শহরের বালাঘাটায় থাকত।

শিশুর যৌনাঙ্গে রক্ত দেখে তার মা বিষয়টি স্বামীকে জানিয়েছেন। ওই দিনই তারা বান্দরবান সদর থানায় শফিউলের নামে মামলা করেছেন।
মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, ২০২১ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি সকালে দুই বছরের মেয়েকে নিয়ে বাসা থেকে বাজারের দিকে যাচ্ছিলেন শিশুটির বাবা। পথে প্রতিবেশী শফিউলের সঙ্গে তার দেখা হয়। শিশুটির ঠান্ডা লাগার কথা বলে শফিউল তাকে আবার বাসায় পৌঁছে দিতে যায়।

বাসায় নিয়ে যাওয়ার পর ওই শিশুর যৌনাঙ্গে রক্ত দেখে তার মা বিষয়টি স্বামীকে জানান। ওই দিনই তারা বান্দরবান সদর থানায় শফিউলের নামে মামলা করেন। এরপর ২০২১ সালের ১৬ জুলাই পুলিশ আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয়।

রাষ্ট্রপক্ষের বিশেষ আইনজীবী বাসিংথুয়াই মারমা জানিয়েছেন, ১১ জনের সাক্ষ্য নেওয়া শেষে আদালত শফিউলকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ১ লাখ টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন।

শিশুর বাবা জানান, ‘আদালত শফিউলকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়ায় আমি খুশি।’

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ