নাটোর প্রতিনিধি মোঃ সাহাবুল আলম:
নাটোরে বড়াইগ্রাম উপজেলা হেলথ কমপ্লেক্স থেকে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ফেয়ারওয়েল, ডঃ মো:মোক্তার হোসেনের সভাপতিত্বে ও স্বাস্থ্য পরিদর্শক আব্দুর রহমানের সঞ্চালনায় আজ দুপুর ১২ টায় উপজেলা হেলথ কমপ্লেক্সের হলরুমে অনুষ্ঠিত হলো স্মৃতি বিজড়িত ফেয়ারওয়েল বিদায় অনুষ্ঠান। বিদায় অনুষ্ঠানে ভারাক্রান্ত কন্ঠে প্রথমে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য পরিদর্শক আব্দুর রহমান,তিনি বলেন আমরা যেন স্যারকে হারাচ্ছি না,পিতৃতুল্য অভিভাবকের মত একজন স্যারকে, যে চলে যায় তার মত আর কেউ হয় না, সে হলো একজন অনেকের মধ্যেই অন্যতম, আমরা যা হারাচ্ছি তা আর হয়তো ফিরে পাবার নয়, স্যারের বিদায় টা কিছুতেই মেনে নিতে পারছি না,অনেক আবেগ তাড়িত কথা বলেন তিনি।
বড়াইগ্রাম উপজেলা সি এইচসিপিপি অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোঃ খায়রুল ইসলাম মানিক ও সাবেক -সভাপতি মোঃ আব্দুল আউয়াল কবিরাজ বক্তব্য রাখেন।
বক্তারা বলেন বড়াইগ্রাম উপজেলা হেলথ কমপ্লেক্স এর অন্যতম রূপকার ডা. মো: খুরশীদ আলম স্যার আসার পর হতে বড়াইগ্রাম উপজেলা হেলথ কমপ্লেক্স স্বাস্থ্যসেবার এক রোল মডেল হয়ে দাঁড়িয়েছে, বড়াইগ্রাম বিগত ৪৪ বছরে যতটুকু উন্নয়ন না হয়েছে ডা: খুরশীদ আলম স্যার আসার পর হতে, গরিব দুঃখী অসহায় মানুষ নিয়মিত স্বাস্থ্য সেবা পেয়ে থাকে যার মধ্যে অন্যতম হলো অসুস্থ, গর্ভবতী মা নরমাল ডেলিভারি,এএন.সি পি এন সি স্বাস্থ্য সেবা পেয়ে থাকে এছাড়াও রয়েছে নন কমিউনিকেবল ডিজিজ হাই পেশার উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিকস আক্রান্ত রোগী এখান হতে নিয়মিত চিকিৎসা সেভাবে থাকে। এছাড়া বড়াই গ্রামের শতভাগ মানুষ পেয়েছে করোনার টিকা, এখান থেকে আরো কিছু বিশেষ স্বাস্থ্যসেবা পাচ্ছে মানুষ বিশেষ করে সাপের কামড়ের ভ্যাকসিন, কুকুরে কামড়ানোর রেবিক্স ভ্যাকসিন, এবং শিশুর স্বাস্থ্য সুরক্ষার টিকা, এবং জরায়ুর মুখে ক্যান্সার প্রতিরোধের জন্য প্রতিটি কমিউনিটি ক্লিনিকে ক্যাম্পের মাধ্যমে রোগীদের সনাক্তকরণ এবং তাদের উচ্চতর চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছেন তিনি।
উক্ত অনুষ্ঠানের ডা.মোঃ মুক্তার হোসেন বলেন স্যার আমাদের একজন আইডল, আমাদের মাঝে ১ বছর ১০ মাস আসার পরে হতে আমাদের বড়াইগ্রাম উপজেলা হেলথ কমপ্লেক্সের কর্মরত সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ দোরগড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌছে দেওয়ার জন্য একাধারে কাজের সঙ্গে যুক্ত হয়েছি।স্যারের দিকনির্দেশনায় আমরা অনেক কিছু শিখেছি এবং রোগীদেরকে বাস্তবসম্মত চিকিৎসা দিতে সক্ষম হয়েছি।
তিনি ব্যথিত কন্ঠে বলেন -যেতে নাহি দিব হায় তবু যেতে দিতে হয় তবু চলে যায়।
এ বিদায় শেষ বিদায় নয় স্থানের পরিবর্তনের বিদায় মাত্র। যে তিনি আরো বলেন স্যার আসার পর হতে অত্র প্রতিষ্ঠানের, চালু হয়েছে আল্ট্রাসনোগ্রাফি, এক্সরে, ই সি জি,প্যাথলজিকাল পরীক্ষা-নিরীক্ষা যেখান থেকে নামে মাত্র মূল্য দিয়ে এখন বড়াইগ্রাম উপজেলা হেলথ কমপ্লেক্স হতে মানুষ স্বাস্থ্যসেবা পেয়ে থাকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করাতে পারে । যা নাটোর জেলার অন্য কোন উপজেলায় এ ধরনের স্বাস্থ্য সেবা চলমান আছে ব্যবস্থা আছে কিনা তা আমার জানা নেই,তবে আমার কাছে মনে হয় একমাত্র আমাদের বড়াই গ্রামে মানুষেরাই এ ধরনের স্বাস্থ্য সেবা মানুষ প্রতিনিয়তই পাচ্ছে যা একমাত্র সম্ভব হয়েছে স্যারের অবদানে। পরিশেষে সবাইকে বিদায়ী শুভেচ্ছা জানিয়ে উক্ত অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করেন বড়াইগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর বিদায়ী প: প: কর্মকর্তা । ডা.মো: খুরশিদ আলম।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ