মিজানুর রহমান মিলন,
বগুড়া জেলা প্রতিনিধি :

বগুড়ার শেরপুরে জামুর ইসলামিয়া সিনিয়র আলিম মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল মান্নানকে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয়রা উদ্ধার করে তাকে বগুড়ায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় বুধবার (২১জুন) সন্ধ্যায় থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়।

এর আগে মঙ্গলবার (২১জুন) দিন রাত অনুমান সাড়ে নয়টার দিকে উপজেলার কুসুম্বী ইউনিয়নের টুনিপাড়া নামক স্থানে এই ঘটনা ঘটে। সন্ত্রাসী হামলায় আহত আব্দুল মান্নান উপজেলার একই ইউনিয়নের জামুর গ্রামের মৃত ওলি মাহমুদের ছেলে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অধ্যক্ষ আব্দুল মান্নান জানান, মাদ্রাসার জলাশয় জোরপূর্বক দখলে নিতে স্থানীয় চিহিৃত একটি সন্ত্রাসী গ্রুপ মরিয়া হয়ে উঠে। এজন্য একাধিকবার তাকে হুমকি-ধামকিও দেয় তারা। তাই বিষয়টি লিখিত ভাবে জানাতে মঙ্গলবার দুপুরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কার্যালয়ে যান। পরে ইউএনও স্যারের পরামর্শে থানাতেও অভিযোগ করেন। এসময় তার সঙ্গে মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোশারফ হোসেনও ছিলেন। এসব কাজ শেষে মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি যাচ্ছিলেন তারা। পথিমধ্যে টুনিপাড়া নামক স্থানে পৌঁছালে মোটরসাইকেলটির গতিরোধ করে দুর্বৃত্তরা। এসময় মোটরসাইকেলের পেছনে থাকা মাদ্রাসার সভাপতি দৌঁড়ে আত্মরক্ষা করেন। কিন্তু চারপাশ থেকে অমাকে ঘিরে ধরে দুর্বৃত্তরা। এমনকি লোহার রড দিয়ে উপর্যুপরি পেটাতে থাকে। সেইসঙ্গে তার শরীরের একাধিক স্থানে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে। এতে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন তিনি। একপর্যায়ে মৃত ভেবে ফেলে রেখে চলে যায় তারা। কিছু সময় পর জ্ঞান ফিরে এলে চিৎকার করতে থাকি। পরে আশপাশের লোকজন এসে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে এবং পরে বগুড়ায় শজিমেক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। এই হামলার ঘটনায় ১৫-২০জন সশস্ত্র লোকজন অংশ নেয় বলে দাবি করেন ভুক্তভোগী মাওলানা আব্দুল মান্নান।

হাসপাতালের চিকিৎসক জানান, মাদ্রাসা অধ্যক্ষের দুইটি হাত ও একটি পা ভেঙে গেছে। এছাড়া শরীরের একাধিক স্থানে ধারালো অস্ত্রদিয়ে আঘাতের চিহৃ রয়েছে। তিনি বর্তমানে শঙ্কামুক্ত হলেও তাকে দীর্ঘসময় চিকিৎসাধীন থাকতে হবে বলে জানান।

শেরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাবু কুমার সাহা বলেন, ঘটনাটি গুরুত্বের খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সেইসঙ্গে ঘটনায় জড়িতদের চিহিৃত করে আইনের আওতায় আনতে পুলিশ কাজ করছে বলে দাবি করেন তিনি।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ