তানিয়া আক্তার, স্টাফ রিপোর্টার: নাটোরের নলডাঙ্গায় রাতে এক প্রবাসীর স্ত্রীর পরকীয়ার অনৈতিক সম্পর্কের ঘটনা ধরতে গিয়ে ইউপি সদস্য আব্দুল মালেক ব্যাপারীর ছেলে তুহিন ও তার ভাতিজা ওসমান ব্যাপারীকে মিথ্যা ধর্ষণ মামলার আসামী করার অভিযোগ উঠেছে। রবিবার (১৮ ফ্রেবুয়ারি) বেলা ১১ টার দিকে উপজেলার বাঁশিলা পূর্বপাড়া গ্রামে স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল মালেক ব্যাপারীর বাড়িতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন ইউপি সদস্য ও এলাকাবাসী। সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন,মাধনগর ইউনিয়নের ৯ নং ওর্য়াডের সদস্য আব্দুল মালেক ব্যাপারী,আবেদ আলী প্রধান,আইচাঁদ আলী,আজিজুল ইসলাম,আয়শা বেগম,রাবিয়া বেগম প্রমুখ। সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা বলেন, নলডাঙ্গা উপজেলার বাঁশিলা পূর্বপাড়া গ্রামের সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীর পরকীয়া সম্পর্ক ছিল ওই গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলের সাথে।গত বছরের ১৮ ডিসেম্বর রাতে বাড়ি থেকে বের হয়ে ওই প্রবাসীর স্ত্রী পরকীর অনৈতিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়েছিলেন। এসময় পরকীয়ার এ অনৈতিক সম্পর্ক ধরতে গিয়েছিলেন ইউপি সদস্য আব্দুল মালেক ব্যাপারীর ছেলে তুহিন ও তার চাচাতো ভাই ওসমান ব্যাপারী,জীবন ও শুভ।পরকীয়ার সম্পর্ক আড়াল করতে ও সংসার টিকিয়ে রাখতে কুচক্রী মহলের পরামর্শে প্রবাসীর স্ত্রী গৃহবধূ মিথ্যা ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।তারা আরোও অভিযোগ করেন হাসপাতালে ধর্ষণের আলামত পায়নি।এ ধর্ষণের মামলার সাক্ষী করা হয়েছে অন্য এলাকার ব্যাক্তিদের।এলাকার কুচক্রী একটি মহল দুই বারের নির্বাচিত জনপ্রিয় ইউপি সদস্য আব্দুল মালেক ব্যাপারীর পরিবারের সুনাম নষ্ট করার জন্য এ যড়যন্ত্র মুলক মিথ্যা ধর্ষণ মামলা দায়ের করা হয়েছে।এ মামলার সঠিকভাবে তদন্ত করে প্রকৃত ঘটনা বের করার দাবী করেন। উল্লেখ্য গত ২০২৩ সালের ১৮ ডিসেম্বর রাতে উপজেলার বাশিঁলা পূর্বপাড়া গ্রামের এ সৌদি প্রবাসীর স্ত্রী গৃহবধূ নিজে বাদী হয়ে ৪ জনের বিরুদ্ধে নলডাঙ্গা থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ