নোয়াখালী
নৃশংস হত্যাকাণ্ডের শিকার নোয়াখালী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী তাসনিয়া হোসেন অদিতি। হাতের রগ ও গলা কাটা লাশ উদ্ধার।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যার কোন এক সময় নোয়াখালী পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের লক্ষ্মীনারায়ণপুর এলাকায় ওই শিক্ষার্থীর নিজ বাসায় এ ঘটনা ঘটে।
নিহত তাসমিয়া হোসেন অদিতি (১৫) নোয়াখালী পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের লক্ষীনারায়ণপুর মহল্লার মৃত রিয়াজ হোসেনের ছোট মেয়ে এবং স্থানীয় নোয়াখালী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। তারা দুই বোন। শারীরিক প্রতিবন্ধী বড় বোন ঢাকায় থাকে। অদিতি থাকেন তার মায়ের সাথে নোয়াখালীতে।

সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ারুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে ওই কিশোরীকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশকে জানানো হয়। খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়।

ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায় ওই স্কুল ছাত্রীর নিজ শয়ন কক্ষে তার গলা কাটা ও হাতের রগ কাটা মরদেহ পড়ে আছে। তবে এখন পর্যন্ত হত্যাকাণ্ডের কোন কারণ জানা যায়নি।
ওসি আরও জানান, মরদেহ উদ্ধার করে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হচ্ছে। বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষ পরে বিস্তারিত জানানো হবে অপর দিকে হত্যার ১২ঘন্টার মধ্যে আজ শুক্রবার বেলা ২টায় অদিতি হত্যার মূল আসামী আবদুর রহিম রনিকে গ্রেপ্তার করেছে সুধারাম থানা পুলিশ।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ