নিজস্ব প্রতিবেদক: ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলাধীন ২নং মগর ইউনিয়নের উত্তর মগরের বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত মোঃ আঃ বারেক মীরবহর, পিতাঃ মৃত আলহাজ্ব মোঃ মুজ্জাফ্ফর আলী মীরবহর এর রেকর্ডীয় সম্পত্তি জোরপূর্বক দখলের চেষ্টা চালায় ওই একই গ্রামের বাসিন্দা মৃত রাজ্জাক হাওলাদারের পুত্র মোঃ হুমায়ুন কবির ওরফে এস.কবির (৪৪) ও তার ভাড়াটিয়া গুন্ডা মোঃ ফারুক হোসেন, ওরফে কালা ফারুক (৪৫), পিতাঃ আব্দুল মজিদ। গত মাসে বেআইনী ভাবে তারা জোর পূর্বক মুক্তিযোদ্ধার জমিতে সাইনবোর্ড টানায়। বিষয়টি জানতে পেরে বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত মোঃ বারেক মীরবহর এর ছোট ভাই মোঃ শাহ জালাল মীরবহর ওরফে বাদশা (৪৮) জমিতে বেয়াইনিভাবে টানানো সাইনবোর্ড অপসারণ করতে একাধীকবার অনুরোধ করলেও উল্টো তাকে মুঠোফোনে প্রাচীর নির্মান করার হুমকি দেয়। নিরূপায় হয়ে শাহ জালাল মীরবহর ২নং মগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব এনামুল হক শাহিনের বরাবরে গত ২৯/১১/২০২২ ইং তারিখ একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। চেয়ারম্যান এনামুল হক শাহিন বিষয়টি অবহিত হয়ে কবির ও কালা ফারুককে সতর্ক করলেও তারা তাতে কোন কর্নপাত না করে বরং গত ০৫/১১/২০২২ ইং তারিখ সোমবার সকাল আনুমানিক ০৯:৩০ মিনিটের দিকে ২০-২৫ জন লোক লাঠি সোঁটা ও দেশিয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে মুক্তিযোদ্ধার জমিতে বাঁশের বেড়া দিয়ে জমির চারদিক ঘেরাও করে এবং উক্ত জমি দখল করার হুমকি দিয়ে যায়। পরবর্তীতে বাধ্য হয়ে শাহ জালাল মীরবহর বাদী হয়ে ঝালকাঠি বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ১৪৪/১৪৫ ধারায় এম.পি ৭৫১/২০২২ (নল) নং একটি মামলা দায়ের করেন। এতে বিবাদী হিসেবে অন্যারা হলেন কবিরের ভাই মোঃ নজরুল ইসলাম লিটন (৪৩), কবিরের ভাগিনা মোঃ রুবেল হাওলাদার (২৭), মোঃ তারেক হোসেন (২৩), পিতাঃ রত্তন হাওলাদার, কবিরের ছেলে মোঃ রিফাত (১৭) ও ভগ্নীপতি মোঃ আশ্রাব আলী হাওলাদার (৫৮)। এলাকাবাসী জানায় এই জমির পাশে সামান্য কিছু জমি ক্রয় করে সে আশেপাশের অন্যদের জমি জোর করে দখলে নেওয়ার চেষ্টা করছে। এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলে, তার ছেলে রিফাত বখাটে কিশোর গ্যাং এর লিডার। কিছুদিন আগে সে মোবাইল ছিনতাই এর সাথে জড়িত থাকায় তার বিরুদ্ধে নলছিটি থানায় একটি মামলা রুজু করা হয় বলে জানায় এলাকাবাসী।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ