নওগাঁ সদর উপজেলার সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তরে সেবা পেতে ঘুষ, দুর্নীতি ও হয়রানির শিকার হওয়া ভুক্তভোগীদের ৩৯টি অভিযোগের গণশুনানি করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আজ রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সদর উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে সকাল ১০টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত এই শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের কমিশনার (তদন্ত) জহুরুল হক।
গণশুনানিতে সদর উপজেলায় অবস্থিত ১২টি সরকারি দপ্তর, একটি ইউনিয়ন পরিষদ, একটি স্বায়ত্ব শাসিত প্রতিষ্ঠান ও ১টি কাজী অফিসের ঘুষ, দুর্নীতি ও হয়রানির বিরুদ্ধে সরাসরি অভিযোগ উপস্থাপন করেন সেবা গ্রহীতারা। এসব অভিযোগের মুখোমুখি হন সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে অভিযোগ নিষ্পত্তির পাশাপাশি অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থ্যা নেওয়ার নির্দেশনা দেন দুদক কমিশনার। এসময় প্রতারণার দায়ে একজন মৌলভীকে গ্রেফতারের নির্দেশনাও দেওয়া হয়।নওগাঁর জেলা প্রশাসক গোলাম মওলার সভাপতিত্বে গণশুনানিতে অন্যদের মধ্যে দুর্নীতি দমন কমিশনের মহাপরিচালক (তদন্ত)আকতার হোসেন, রাজশাহী বিভাগীয় পরিচালক কামরুল আহসান, নওগাঁর পুলিশ সুপার মুহাম্মদ রাশিদুল হকসহ দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির নেতৃবৃন্দরা বক্তব্য রাখেন।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ