উজ্জ্বল কুমার সরকারঃ
নওগাঁর সাপাহার উপজেলার ব্যবসায়ী সাজু মোল্লার ছেলে রাফি মোল্লা ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে রংপুর ক্যাডেট স্কুল এন্ড কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন। রাফির বাবার স্বপ্ন ছেলেকে দেশের কল্যাণে কাজে লাগাবেন। রাফির বাবা সাজু মোল্লা চান তাঁর ছেলে একজন সফল ক্যাডেট হয়ে সেনা বাহিনীর অফিসার হিসেবে দেশের কল্যাণে কাজ করুক। রাফির বাবা সাজু মোল্লা গর্ব করেন বলেন তিনি এক জন কাঠমিস্ত্রি। বর্তমানে তিনি সাপাহার উপজেলা সদরের এক জন সফল হার্ডওয়ার ব্যবসায়ী হলেও তিনি তাঁর অতীত পেশার প্রতি শ্রদ্ধা রেখে গর্ব করে বলেন ‘আমি এক জন কাঠমিস্ত্রি’। জীবিকার তাগিদে নওগাঁ সদরের চন্ডিপুর গাংদিয়ার পাড়া হতে সাপাহারে এসে দীর্ঘদিন কাঠমিস্ত্রির কাজ করে বর্তমানে তিনি সফল হার্ডওয়ার ব্যবসায়ী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমার সফলতার পিছনে কঠোর পরিশ্রম এবং আমার বাবা ইয়াকুব আলী মোল্লা ও মায়ের দোয়া ছিলো। আলহামদুলিল্লাহ্ আমি এখন একজন সফল প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী। আমি আমার জীবনে কঠোর পরিশ্রম করে ব্যবসায়ী হয়েছি। কিন্তু আমার স্বপ্ন আমার ছেলেকে দেশের কল্যাণে কাজে লাগাবো। সেই স্বপ্ন নিয়ে ছেলেকে গড়ে তোলার চেষ্টা করে যাচ্ছি।’ সাজু মোল্লা সাপাহার উপজেলার তাজপুর গ্রামে বাড়ি নির্মাণ করে স্ত্রী সন্তান নিয়ে বসবাস করছেন। তিনি উপজেলা সদরের সাপাহার হার্ডওয়ার এন্ড গ্লাস হাউস এর প্রতিষ্ঠাতা। সাজু মোল্লার ছেলে রাফি মোল্লা বাবার স্বপ্ন পূরণে নিজেকে গড়ে তোলার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। রাফি মোল্লা উপজেলার জয়পুর রাজ্যধর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় হতে কৃতিত্বের সাথে পঞ্চম শ্রেণি এবং সাপাহার পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় হতে ষষ্ঠ শ্রেণি পাশ করেন। এরপর বগুড়া জলেশ্বরীতলা শাহীন ক্যাডেট কোচিং সেন্টারে এক বছর কোচিং শেষ করে ক্যাডেট স্কুল এন্ড কলেজে ভর্তির জন্য লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নেয়। রাফি মোল্লা ক্যাডেট ভর্তি পরীক্ষায় কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হয়ে রংপুর ক্যাডেট স্কুল এন্ড কলেজে সপ্তম শ্রেণিতে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন। রাফির এই কৃতিত্বে তাঁর বাবার স্বপ্নের পথে প্রাথমিক ধাপে পৌঁছে গেলেন রাফি, বলে মনে করেন তাঁর বাবা সাজু মোল্লা। সাজু তাঁর ছেলের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক এবং শাহীন ক্যাডেট কোচিং সেন্টারের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। সাজু মোল্লা চান তাঁর ছেলে একজন সফল ক্যাডেট হয়ে সেনা বাহিনীর অফিসার হিসেবে দেশের কল্যাণে কাজ করুক। তিনি তাঁর সন্তান রাফি মোল্লার সাফল্য কামনায় সকলের কাছে দোয়া চান। জয়পুর রাজ্যধর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘রাফি একজন মেধাবী শিক্ষার্থী ছিলো। আমরা জেনেছি সে ক্যাডেট স্কুল এন্ড কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে। আমরা তাঁর ভবিষ্যত জীবনে সাফল্য কামনা করি।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ