এম,ডি রেজওয়ান আলী বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি-দিনাজপুর নবাবগঞ্জ উপজেলা মনোহরপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেনীর ছাত্রী নিজ বিদ্যালয়ের শিক্ষক দ্বারা ধর্ষিত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। ক্ত ঘটনা সরজমিনে জানা যায় (২২শে জুন) বৃহস্পতিবার সকাল ৯ ঘটিকায় মনোহরপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে ধর্ষিত ছাত্রীর অবিভাবক আত্মীয় স্বজন ও স্থানীয় সাধারণ জনগন বিদ্যালয়ের ধর্ষক শিক্ষকের বিচারের দাবিতে প্রধান শিক্ষকের নিকট উপস্থিত হয়ে অভিযোগ ও বিচার দাবি করেন। এমন অবস্থায় প্রধান শিক্ষক বিপাকে পড়ে যায়। কোন কথা না বলে বিদ্যালয় ভবনের মুল কলাপসিবল দরজা বন্ধ করে বিদ্যালয় ভবনের ভিতরে অবস্থান করেন।
বাহিরে উত্তেজিত জনগনের সঙ্গে কথা বলতে অনিহা প্রকাশ করেন। এমন পরিস্থিতিতে বাহিরে অবস্থানরত উত্তেজিত জনগন বিদ্যালয়ের কলাপসিবল দরজা ভেঙে ভিতরে প্রবেশ করার চেষ্টা করেন।একপর্যায়ে উত্তেজিত জনতা প্রধান শিক্ষকের মোটরসাইকেলে আগুন লাগিয়ে দেয়। ফলে আগুনের মোটরসাইকেলটি পুড়ে যায়। এমন অবস্থা সংবাদ পেয়ে নবাবগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনা স্থলে উপস্থিত হন। উত্তেজিত জনতাকে বিদ্যালয়ের দরজা ভেঙে ভিতরে প্রবেশ করতে বাধা প্রদান করলে উত্তেজিত জনগন অভিযুক্ত শিক্ষকের বাড়িতে যায়। বাড়ির জানালা সহ অনেক জিনিসপত্র ভাংচুর করেন। এসময় সংবাদ পেয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক ঘটনাস্থলে এসে উত্তেজিত জনগনের সঙ্গে কথা বলে অভিযুক্ত শিক্ষককে বিচারের আওতায় আনার আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয় এবং ধীরেধীরে জনগন ঘটনা স্থল ত্যাগ করেন। জানা যায় উক্ত মনোহরপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্রী রুকুমনির বাবা ৭/৮ মাস আগে মারা যাওয়ায় সে স্কুলে আসা বন্দ করে দেয়। কারন তার বাবার মৃত্যুর পরে তার লেখা পড়ার খরচ বহন করার সামর্থ্য ছিলনা। বিদ্যালয়ের শিক্ষকগন ও ম্যানেজিং কমিটির সকল সদস্যগণ সহ রুকু মনির বাড়িতে গিয়ে তার মা ও তার সঙ্গে কথা বলে তার লেখা পড়ার সকল দ্বায়িত্ব বিদ্যালয় কতৃপক্ষ গ্রহণ করেন।
সেই থেকে রুকুমনি পুনরায় বিদ্যালয়ে অধ্যায়ন শুরু করেন। এর মাঝে উক্ত বিদ্যালয়ের লাইব্রেরীয়ান শিক্ষক ফিরোজ ছাত্রীটি অসহায়ত্বের সুযোগ নিয়ে ছাত্রীকে বিভিন্ন প্রকার প্রলোভন দেখিয়ে অনৈতিক সম্পর্কে জড়িয়ে ফেলেন। এর কিছুদিন পর উক্ত ছাত্রী তার মায়ের নিকট সব ঘটনা প্রকাশ করেন। সে দুই তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা। তার মা মেয়ের এমন সর্বনাশের কথা শুনে বিদ্যালয় কতৃপক্ষ ও স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তি বর্গের নিকট এই ঘটনার সুষ্ঠ বিচার দ্বাবি করেন।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ