পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার সদর
ইউনিয়নের মাথাফাটা এলাকার এলজিইডি
সড়কের ড্রেনের পানি মুখ বন্ধ
নিয়ে বিরোধে জেরে সংঘর্ষে
২ জন আহত হয়েছেন। আহতদের উদ্ধার করে তেঁতুলিয়া উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা শহিদুল (৪০) অপর পক্ষের , আব্দুল বাসেত,(৩০)
তবে অভিযুক্ত আব্দুল বাসেত বলেন, আমাকেই মেরেছে বলে জানান

স্থানীয়রা জানায়, ওই এলাকার আব্দুল বাছেতের
পরিবারের সাথে – প্রতিবেশি শহিদুলের
পরিবারের এলজিইডি সরকারী একটি সড়কে ড্রেন বর্ষার পানি বন্ধ
নিয়ে বিরোধ হয়। পানি বন্ধ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে।

  1. সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সোমবার দুপুরে বর্ষনে
    ড্রেনের মূখ বন্ধ,বর্ষার জলে বসত ঘর, সড়ক ভেঙ্গে পড়েছে।
    ,বিরোধীয় ড্রেনের পানি বন্ধ খুলে দিতে যায় শহিদুল পরিবারের সদস্যরা। এ সময় আব্দুল বাসেত তার পরিবারের লোকজন নিয়ে বাধা দিতে গেলে উভয়ের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে দুইপক্ষের আহত হন। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে তেঁতুলিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ বিষয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ হয়েছে। এব্যাপারে
    মাথাফাটা গ্রামের
    শহিদুল, অভোযোগ করে
    বলেন, ৪/৫ টি বাড়ীতে পানি ঢুকে পানির কারনে বসতবাড়ি ভেঙ্গে গেছে। বর্ষার পানি যেতে পারেনি জল উপচাইয়া পুকুরের পোনা মাছ ভেসে গেছে।এতে ঘরবাড়ি গাছপালার ক্ষতি হয়েছে, ১লক্ষ ৮০ হাজার টাকা।
    সেই ড্রেন তারা এখন নিজে দাবী করছে।
    । এতে আমার দুই লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। এ বিষয়ে আমি থানায় অভিযোগ দিয়েছি। এ ঘটনায় প্রতিবাদ জানান,
    মাথাফাটা বাজারে গেলে তারা আমাদের উপর হামলা করে।
    এ বিষয়ে তেঁতুলিয়া মডেল থানার এস আই ফারুক হোসেন
    বলেন, দীর্ঘদিন উভয়পক্ষের মধ্যে ড্রেন নিয়ে বিরোধ চলছে। বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ বিষয়ে সোমবার তেতুলিয়া সদর
    ৫ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো; মুনছুর আলম যোগাযোগ করলে বলেন চেয়াম্যানসহ পরিদর্শন করেছি,জরুরী
    কালভার্ট তৈরি করে দিবো
পোস্টটি শেয়ার করুনঃ