মোঃ মনির হোসেন, স্টাফ রিপোর্টোরঃ
নোয়াখালীর চাটখিলে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ৫ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানীর অভিযোগ উঠেছে।
আর এই অভিযোগ করে ওই ছাত্রীর মা বিপাকে পড়েছেন বলে সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেছেন তিনি।

অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম আ,ফ,ম নুরুল হুদা ফয়সাল। তিনি উপজেলার কামালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

যৌন নিগ্রহের শিকার ওই ছাত্রীর মা গতকাল চাটখিল উপজেলা প্রেসক্লাবে এসে জানান, তার মেয়ে কামালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ শ্রেণির ছাত্রী। প্রধান শিক্ষক আ,ফ,ম নুরুল হুদা নানা সময়ে মেয়েদের সাথে আপত্তি জনক কথা বলা, নানা বাহানায় তাদের শরীরের স্পর্শ কাতর স্থানে হাত দেওয়া, স্কাউট ও খেলাধুলার নামে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন সহ বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকান্ড করেছিলেন। বিষয়টি তার কানে আসা মাত্র তিনি তার মেয়েকে জিজ্ঞাসা করে এর সত্যতা পান। এই নিয়ে তিনি গত ২৬ সেপ্টেম্বর চাটখিল নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বরাবর একটা অভিযোগ দায়ের করেন।

সে অভিযোগ এর ভিত্তিতে ইউএনও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে ঘটনাটি তদন্তের দায়িত্ব দেন। পরে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এহসানুল হক চৌধুরী ছাত্রীর মাকে উপজেলা শিক্ষা অফিসে ডেকে এনে বিষয়টি মীমাংসা করার প্রস্তাব দেন। এবং শিক্ষা কর্মকর্তা তাকে বলেন, এটা আপনার এবং আপনার কন্যার মান-সম্মানেরও ব্যাপার। এটা চিন্তা করে অন্তত এই নিয়ে না বাড়াবাড়ি করতে। এই নিয়ে তিনি বেশ কয়েকবার ওই ছাত্রীর মাকে অফিসের ডেকে নিয়ে এসে অভিযোগ প্রত্যাহারের চাপ দেন। একপর্যায়ে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষককে স্কুল থেকে বদলি করে দেয়ার কথা বলেন।
ওই ছাত্রীর মা আরো জানান, এ সময় উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তার থেকে সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেন। তিনি অনেকটা চাপের মুখে ঐ শিক্ষকের বদলি শর্তে অভিযোগ শিথিল করেন।

তিনি আরো জানান, কিন্তু মাস খানিক বিরতির পরেই অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক ফের ওই স্কুলে আবারো যোগদান করেন। এরপর থেকে সেই প্রধান শিক্ষক তার মেয়ে এবং তাকে হুমকি ধমকি দিতে থাকে। তার নামেও নানা কুৎসা রটাতে থাকে। এমনকি তার মেয়েকে পঞ্চম শ্রেণী থেকে উত্তীর্ণ হলেও সার্টিফিকেট না দেওয়ার হুমকি দেয়। এই অবস্থায় তিনি নিরাপত্তাহীনওতায় ভুগছেন বলেও দাবি করেন।

এদিকে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষিক আ.ফ.ম নুরুল হুদাকে মুঠোফোনে কল দিয়ে বিষয়টি জানতে চাইলে, তিনি বিষয় মিথ্যা, ভিত্তিহীন এবং এ ঘটনায় তিনি জড়িত নয় বলে জানান।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ