গাজীপুর প্রতিনিধি :

গাজীপুরে ফারুক নামে পুলিশের এক সোর্সকে খুনের ঘটনায় প্রধান ঘাতক বাদল হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বাদল হোসেন নগরীর দেশিপাড়া নতুন বাজার এলাকার মো. মনসুর আলীর পালিত সন্তান।
বৃহস্পতিবার রাতের তৃতীয় প্রহরে জিএমপি’র সদর থানা পুলিশের একটি দল ঢাকার সায়দাবাদ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গাজীপুর মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার (অপরাধ-উত্তর) আবু তোরাব মোঃ শামসুর রহমান।
এর আগে নগরীর দেশিপাড়া এলাকা থেকে পুলিশের সোর্স ফাহরিয়ার আহমেদ ফারুক (৩৫) এর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ফারুক দেশীপাড়া এলাকার নুরুল ইসলাম সিকদারের ছেলে।
স্থানীয় সূত্রে জানায়, গত বুধবার ছেলে আয়ান (২) কে নিয়ে স্থানীয় হারেজ মার্কেটের একটি সেলুনে চুল কাটতে যান ফারুক। স্থানীয় বাদল ও আলতাফ সেলুনে প্রবেশ ডুকে ফারুককে বের করে এনে ঝোপঝাড়ে নিয়ে উলঙ্গ করে ধারালো অস্ত্র দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারাত্মকভাবে কুপিয়ে হত্যা করে। পরে ঢাকার সায়দাবাদ এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রধান ঘাতক বাদলকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে বাদল জানান, পূর্ব শত্রুতার  জেরে ফারুককে হত্যার উদ্দেশ্যে সুযোগ খুঁজছিলেন বাদল ও তার সহযোগী আলতাফ। ঈদুল আজহার আগের দিন ফারুক ছোট ছেলেকে নিয়ে চুল কাটতে গেলে সুযোগ পেয়ে ফারুককে প্রকাশ্যে কুপাতে কুপাতে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যায়। এরপর বাগানে নিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে পঁচা ডোবায় ফেলে দেন।
উপ-কমিশনার আবু তোরাব মোঃ শামসুর রহমান বলেন, বাদলের নামে হত্যা মামলাসহ মোট চারটি মামলা রয়েছে। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সে মাদক বিক্রি ও সন্ত্রাসী কার্যক্রমের কথা স্বীকার করেন। আসামীর দেখানো মতে খুনের ঘটনাস্থল থেকে দেশীয় ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ ৭দিনের রিমান্ড চেয়েছিলাম বিজ্ঞ আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। জড়িত অনান্যদের গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
এর আগে ২৯ জুন ফারুকের বাবা নুরুল ইসলাম সিকদার বাদী হয়ে জিএমপি সদর থানায় মামলা নং-{৪২(০৬)২৩} দায়ের করেন।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ