মোঃ শহিদুল ইসলাম খান, সিরাজগন্জ: সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার ৮নং বেলতৈল ইউনিয়ন ১নং ওয়ার্ড কুঠি সাতবাড়িয়া গ্রামের গরু ব্যবসায়ী আশাদুল ইসলাম ওরফে মতিন প্রামাণিক কে মারপিট করে ২ লক্ষ ৮১ হাজার টাকা ছিনতাই করে নেওয়ার অভিযোগ ওঠে ঐ গ্রামের আনছার আলী প্রামানিক ও তার ছেলে রাজিব, মেয়ে আখি, আনজিরা, ভাই জব্বার প্রামাণিক এর বিরুদ্ধে।

বুধবার ২০শে ডিসেম্বর ২০২৩ ইং সকাল ৭ টায় গরু কেনার উদ্যেশ্যে বের হন আশাদুল ইসলাম ওরফে মতিন প্রামাণিক, আনছারের বাড়ির সামনে আসার পরে এলোপাতাড়ি ভাবে মারপিট করে টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনা ঘটে।

পরে আহত অবস্থায় আশাদুল ইসলাম কে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।
এঘটনায় গ্রামের ময়মুরুব্বি মাতব্বর ইউপি সদস্য আব্দুস ছালাম রাজা সহ অনেকের কাছে বিচার চাওয়া হয়। বিচার আজ কাল দেই দিচ্ছি বলে নানা রকম তালবাহানা করে। বিচার না পেয়ে পরে শাহজাদপুর থানায় আনছার আলীকে ১ নং আসামি করে মোট ৫ জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়।

বিচার না পেয়ে পূনরায় মারপিটের ঘটনা ঘটে এতে গুরুতর আহত হয় আনছার আলী প্রামানিক (৬০),
আহত অবস্থায় সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে ৩ দিনপর বাড়ি ফেরে আনছার আলী।

কিছুদিন পর আবার চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে যায় আনছার আলী, আর সেখানেই তার মৃত্যু হয়।
পরে এ ঘটনায় আব্দুল কাদের কে ১ নং আসামি করে ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।
উক্ত ঘটনায় আব্দুল কাদের, আবু তালেব, মোছা: হেনা বেগম গ্রেফতার হয়।
নিহত আনছারের বড় ছেলে মোঃ নয়ন প্রামাণিক বলেন তারা কয়েকজন মিলে আমার বাবাকে অনেক মেরেছে আর এজন্যই আমার বাবার মৃত্যু হয়েছে। বাবার হত্যাকারীদের উপযুক্ত বিচারের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসির দাবি জানাই।

অন্যদিকে আশাদুল ইসলাম ওরফে মতিন প্রামাণিক এর ভাতিজী মোছাঃ সাথী আক্তার জানান, আমাদের ৫টি বাড়িঘর ভাংচুর অগ্নি সংযোগ করে আনছারের বড় ছেলে মোঃ নয়নের নেতৃত্বে সব কিছুই লুটপাট করে নেয় রাজিব বৃষ্টি ওরফে শাহীন, জব্বার, তারেক, নাইম, তারা, হাছান,সনিয়া, আখি, আনজিরা ও আরও অনেকে ।
ঘরে থাকা ৫টা ফ্রীজ, ৩ টা মোটরসাইকেল, ২ টা পাওয়ার টিলার, প্রজেটের তার সহ ৪টা মোটর, ৫টা স্টীলের টাং, ৫ টা শুকেজ, ৪ টা খাট, ছোবাসেট, ৫ টা টিউবওয়েল, ৪ টা পানি উঠানোর মোটর, ডলনা সহ ৪ টা মেশিন, ৬ ভরি স্বর্ণ, ৭ টা গরু, ৯ টা ছাগল নগদ ৩ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা ১০০ মন ধান সহ কয়েকটি ফ্যামেলির যাবতীয় আসবাব পত্র সহ প্রায় ২৫ লক্ষ টাকা লুটপাট করে নিয়েছে বলে জানান।

প্রতিবেশী জহির মন্ডল জানান, লাশ মাটি হওয়ার পরই ৪০-৫০ জন মানুষ এসে তাদের ঘরবাড়িতে আগুন দিয়ে সব মালামাল লুটপাট করে ভ্যানে করে সব নিয়ে যায়, শীতের রাত হওয়ায় মাফলাট দিয়ে মুখ বাধা ছিল তাই কাওকে চিনতে পারিনি, পরে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

ইউপি সদস্য আব্দুস ছালাম রাজা জানান, টাকা পাওনাকে কেন্দ্র করে দফায় দফায় মারপিটের ঘটনা ঘটে প্রথমে আসাদুল ইসলাম ওরফে মতিন প্রামাণিক আহত হয়ে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে গ্রামের ময়মুরুব্বি মাতব্বর এমনকি আমার কাছেও বিচার চায়, আর এই বিচার না হওয়ার কারনে পূনরায় মারপিটের ঘটনা ঘটে, এতে আহত হয় আনছার আলী, পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
এবিষয়ে শাহজাদপুর থানার ওসি খায়রুল বাশার এর নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, এঘটনায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। ৩ জন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ