সাহাজুদ্দিন সরকার গাজীপুর প্রতিনিধি।
গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার আন্ধার মানিক এলাকায় গত মঙ্গলবার স্বামীর অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে ফাতেমা আক্তার (৪০) নামে শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
তিনি এখন শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন
ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল মঙ্গলবার স্বামী স্ত্রীর ঝগড়া জেরে রাত ১১ টায় ঘটনা ঘটে। দগ্ধ ফাতেমার পরিবার ও এলাকাবাসীর সূত্রে জানা যায়, ড্রাইভার সুরুজ মিয়ার ৩০ বছরের সংসা। গত কয়েক বছর ধরে তাদের মধ্যে বনিবনা হচ্ছিল না, পারিবারিক কলহ লেগেই থাকতো এছাড়া ড্রাইভার সুরুজ মিয়া পরকীয়া প্রেমে লিপ্ত থাকতো এই নিয়ে তাদের মধ্যে সংসার জীবনে ঝগড়া কলহ লেগেই থাকতো। স্বামীর অত্যাচার সহ্য করতে না পেরেই নিজের শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন ফাতেমা। দগ্ধ ফাতেমার ভাই এবং ডাক্তাররা বলেন ফাতেমার শরীরের ৮২ শতাংশ পুরে গিয়েছে আমি গাড়ি নিয়ে বাহিরে ছিলাম। দগ্ধ ফাতেমার স্বামী সুরুজ মিয়া বলেন , আমি গাড়ি নিয়ে বাহিরে ছিলাম। আমার বোন খবর দেয় ফাতেমা গায়ে আগুন দিয়েছে, আমি কখনো তাকে নির্যাতন করি নাই পরকিয়ার অভিযোগটিও মিথ্যা। মৌচাক পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ শহিদুল ইসলাম বলেন, এই ঘটনায় এখনো লিখিত অভিযোগ করেনি।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ