মোঃ নাসির উদ্দিন, স্টাফ রিপোর্টারঃ
মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপের কারণে টানা দুই বছর অনুষ্ঠিত হয়নি বিশ্ব ইজতেমা। নতুন বছরের শুরুতেই বিশ্ব ইজতেমার সিদ্ধান্ত হয়েছে। জানুয়ারিতে দুই পর্বে হবে এই ইজতেমা। ইতোমধ্যে টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে ইজতেমার প্রস্তুতি পুরোদমে শুরু হয়েছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রস্তুতির অংশ হিসেবে ইজতেমা ময়দানের নিচু জমি ভরাট, সামিয়ানা টানানো, রাস্তাঘাট মেরামত ও পয়ঃনিষ্কাশনের কাজ চলছে দ্রুতগতিতে।
তাবলিগের দায়িত্বশীলরা জানান, গাজীপুর, ঢাকা ও আশপাশের এলাকা থেকে বিপুলসংখ্যক মানুষ স্বেচ্ছাশ্রমে অংশ নিচ্ছেন ইজতেমার প্রস্তুতির কাজে। পাশাপাশি তাবলিগ জামাতের সাথীরাও যোগ দিয়েছেন। এছাড়া সাপ্তাহিক ছুটির দিনে বিভিন্ন মাদরাসার ছাত্ররাও ইজতেমার কাজ করছেন।
বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরু হবে ১৩ জানুয়ারি। চলবে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত। মাঝে চার দিন বিরতি দিয়ে দ্বিতীয় পর্ব শুরু হবে ২০ জানুয়ারি। চলবে ২২ জানুয়ারি পর্যন্ত। দুই পর্বেই পৃথক পৃথক আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে।
টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি মো. শাহ আলম জানান, বিশ্ব ইজতেমা সঠিকভাবে বাস্তবায়নের লক্ষে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ-জিএমপি ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছে। ময়দানের আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় ইজতেমার শেষ দিন পর্যন্ত পুলিশ সক্রিয় থাকবে।
ঢাকা থেকে ২২ কিলোমিটার উত্তরে টঙ্গী তুরাগ নদীর তীরে টঙ্গীর বিশাল ময়দানে তাবলিগ জামাতের বিশ্ব ইজতেমা ১৯৬৭ সাল থেকে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। ২০১১ সাল থেকে বিশ্ব ইজতেমা দুই পর্বে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে।
২০১৮ সালে তাবলিগের মুরব্বি ভারতের মাওলানা সাদের বিতর্কিত কিছু বক্তব্যের জেরে বিশ্ব ইজতেমার আয়োজকদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি হয়। এরপর থেকে দুই গ্রুপ দুই পর্বে ইজতেমায় অংশ নিচ্ছে। একটি গ্রুপের নেতৃত্ব দিচ্ছেন ভারতের মাওলানা সাদ অনুসারীরা, অপরটির নেতৃত্বে বাংলাদেশের আলেম-উলামারা।
এবার প্রথম পর্বে ইজতেমা করবেন আলেম-উলামাদের অংশ। আর দ্বিতীয় পর্বে ইজতেমা করবেন মাওলানা সাদের অনুসারীরা। যদিও বিরোধী পক্ষের প্রতিবাদের মুখে মাওলানা সাদ কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশে আসতে পারছেন না।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ