পরিবারের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করতে বাড়ি যাওয়া আসায় ভোগান্তি এবং বাড়তি ভাড়া নেয়ার অভিযোগ করেছেন মমিনুর রহমান নামের একজন কর্মজীবি তরুণ। ঈদে দির্ঘ যানজটের সাথে লড়াই করে বাধ্য হয়ে অতিরিক্ত গাড়ি ভাড়া দিয়ে টানা ৩০ ঘণ্টা রাস্তায় ফেলে রেখে কুড়িগ্রাম জেলায় গ্রামের বাড়ি ফিরেছেন তিনি।পরিবারারের সাথে মাত্র কয়েকদিন সময় কাটিয়ে আবারও ঢাকার পথে।ঈদের ছুটি শেষে আবার ঢাকার উদ্দেশ্যে যখন বাড়ি থেকে বের হইলাম তখন জানতে পারলাম গত রাতে যারা কুড়িগ্রাম থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা করেছে তারা এখনো বগুড়ার জ্যামে বসে আছে তাই। পরিকল্পনা পরিবর্তন করে চিলমারী থেকে নদী পথে রাজিপুরের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছি। নদীর মাঝখানে যখন অবস্থান তখন রাজিপুর প্রান্ত থেকে অপেক্ষামান গার্মেন্টস কর্মী ফুফাতো ভাই কল দিয়ে বল রাজিবপুর ঘাট থেকে ময়মনসিংহ পর্যন্ত ভাড়া চাচ্ছে এক হাজার টাকা। দেখা যাক ঘাটে পৌঁছে আমাদের কত ভাড়া গুনতে হয়।
ছবি
কুড়িগ্রাম জেলা থেকে
(মমিনুর রহমান)

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ