তানিয়া আক্তার, স্টাফ রিপোর্টার:
নাটোরের গুরুদাসপুর পৌর শহরের আবাসিক এলাকায় গড়ে ওঠা দুইটি ইটভাটা গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। একই সাথে পৌর শহরের ৫টি ইটভাটায় ২৭ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সোমবার বিকেলে ইটভাটাগুলোতে অভিযান চালিয়েছে পরিবেশ অধিদপ্তর নাটোর।
পরিবেশ অধিদপ্তরের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ফয়জুন্নেছা আক্তার জানান, পরিবেশের ছাড়পত্র ছাড়াই গুরুদাসপুর পৌর শহরের আবাসিক এলাকায় এসব ইটভাটা ইট প্রস্তুত করে আসছিল। সরকারি কর ফাঁকি দেওয়াসহ নানা ধরণের অভিযোগ রয়েছে এসব ইটভাটার বিরুদ্ধে।
জানা গেছে, গুরুদাসপুর পৌর শহরের আবাসিক এলাকায় যে ৫টি ইটভাটা রয়েছে তার কোনোটিরই লাইসেন্স নেই। লাইসেন্সবিহীন এসব অবৈধ ইটভাটা দীর্ঘদিন ধরে পরিবেশের ক্ষতি করে ইট প্রস্তুত করছে।
সরকারি অনুমোদন না থাকায় ইটভাটাগুলোতে সোমবার পরিবেশ অধিদপ্তরের ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। এসময় টগর প্রামানিকের একেবি ও আমজাদ-মফিজের এএসবি ইটভাটা গুড়িয়ে দেওয়া হয় এবং ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।
এছাড়া একই অভিযোগে মোশাররফ হাজীর এমবিপিকে ৫ লাখ, জুমির উদ্দিন মন্ডলের এমজেডবির ৬ লাখ ও হাজী জাকির হোসেন সোনারের এসএআর ব্রিকসকে ৬ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।
নাটোর পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, পৌর শহরের মধ্যে ইটভাটা গড়ে তোলা অবৈধ। কিন্তু সরকারি নিয়ম ভঙ্গ করে এসব ইটভাটা পরিবেশের ক্ষতি করে ইট প্রস্তুত করছে।
প্রাথমিক পর্যায়ে দুইটি ইটভাটা গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া অন্য ইটভাটার মালিকদের ইট প্রস্তুতের কার্যক্রম বন্ধ রাখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অবৈধ এসব ইটভাটার বিরুদ্ধে তাদের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ